সুখী যৌনজীবনের জন্য এই ৫টি টিপসই যথেষ্ঠ

সারাদিনের কর্মব্যস্ততার করনে আমাদের জীব থেকে কখন যে অনেক কিছু হারিয়ে যাচ্ছে তা টেরই পাওয়া যাচ্ছে না। বেড়াতে যাওয়া, প্রেমিক বা প্রেমিকার সঙ্গে নদীর ধারে বসে সূর্যাস্ত দেখা- এই ব্যাপারগুলি একটু একটু করে গুরুত্ব হারাচ্ছে। এরই সঙ্গে হারাচ্ছে মানুষের যৌন চাহিদা এবং যৌন উত্তেজনাও। কিন্তু শুধুই কি কর্মব্যস্ততা দায়ী মানুষের জীবন থেকে এসব হারিয়ে যাওয়ার নেপথ্যে? না কি রয়েছে আরও কিছু কারণ যা আপনার যৌন জীবনকে নানাভাবে ব্যাহত করছে?

যৌন উত্তেজনা নষ্ট কিংবা কমে যাওয়ার কর্মব্যস্ততা-সহ পাঁচটি কারণ রইল আপনাদের জন্য। সেই সঙ্গে কেমনভাবে এই সমস্যাগুলি কাটিয়ে উঠে সুখি যৌবন যাপন করবেন, তারও মজাদার কিছু টিপস রইল এই প্রতিবেদনে।

 

১.কর্মব্যস্ততা:
আপনার যৌন জীবন নষ্ট করতে কর্মব্যস্ততার জুরি মেলা ভার। সারাদিনে অফিসের খাটুনির পর, শারীরিক এবং মানসিক ক্লান্তি আপনাকে ঘিরে ধরে। তখন আর যৌনতার রহস্য এবং রোমাঞ্চে মন ভোলে না আপনার। মাথায় সবসময় ঘোরে কখন বাড়ি ফিরে বিশ্রাম নেবেন।

সমাধান: নিজের ব্যক্তিগত জীবনকে শুধুমাত্র কাজের জন্য অবহেলা করবেন না। এটা সবসময় খেয়াল রাখবেন, আপনি একা ব্যস্ততার মধ্যে সময় কাটান না, আপনার সঙ্গী বা সঙ্গিনীও কিন্তু একইভাবে কর্মব্যস্ত জীবন কাটায় এবং তারপরেও আপনার জন্য সময় বের করে। তাই অপর ব্যক্তিটির অনুভূতির কথা ভাবুন।

 

২. যৌনতায় একঘেয়েমি: বেশ কয়েকবছর ধরে বিয়ে হয়েছে, এবং ঘরের তৈরি ভাত আর ডাল লাগছে না। বিবাহিত দম্পতিদের এ যেন এক প্রচলিত ভাবনা। প্রায় প্রত্যেকেই হয়ত এমন ভাবনা ভেবে থাকেন। একই সম্পর্ক, একই পার্টনারের সঙ্গে যৌনসম্পর্কে লিপ্ত হওয়া-এই বিষয়গুলি অনেক সময় একঘেয়েমি ডেকে আনে জীবনে। তখন একঘেয়েমি থেকে মুক্তি পেতে যৌনতা থেকেই মুক্তি চেয়ে বসেন কিছু ব্যক্তি।

সমাধান: সম্পর্কের প্রতি আস্থা রাখুন। প্রেম চিরন্তন। এই ভাবনায় ভর করে জীবনটাকে দেখতে শিখুন। পাশের মানুষটির প্রতি ভালবাসা অপরিবর্তিত থাকলে, যৌনতায়ও তাঁকেই নানাভাবে খুঁজে পাবেন আপনি। সেক্ষেত্রে একঘেয়েমি আসার কোনও প্রশ্নই থাকবে না।

৩. ক্লান্তির জয়: সারাদিনের খাটুনির পর ক্লান্ত এবং অবসন্ন হয়ে পড়া খুব স্বাভাবিক একটি ঘটনা। আর এই ক্লান্তি নানাভাবে আমাদের ব্যক্তিগত জীবনের ক্ষতি করে। কর্মক্ষেত্রে অতিরিক্ত পরিশ্রমের পর, বাড়ি ফিরে প্রেম বা সেক্স কেন অনেক সময় বাইরের পোশাক পরিবর্তন করা বা হাত মুখ ধোওয়ার মতো কাজগুলিও করতে ইচ্ছে করে না। এক্ষত্রে ক্লান্তির রমরমিয়ে বেড়ে ওঠায়, যৌনতা হ্রাস পায়।

সমাধান: এক্ষেত্রে নিজের পার্টনারের সঙ্গে নিজের ভাবনাচিন্তা নিয়ে সঠিক অর্থে আলোচনা করা খুবই জরুরি। একটা কথা সবসময় মাথায় রাখুন, যৌন সম্পর্কে ভালবাসার মানুষটিকে সম্পূর্ণ সুখ দিতে পারলে সম্পর্ক আরও মজবুত হয়। পাশাপাশি সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সম্পূর্ণ নির্ভরতা ও বিশ্বাসযোগ্যতাও অর্জন করা যায় তাঁকে চরম রতিসুখ দিলে। তাই একঘেয়েমি দূরে সরিয়ে যৌন জীবনকে রোমাঞ্চে পরিপূর্ণ করে তুলুন এবং সম্পর্ককে মজবুত করুন।

 

৪. পরিপূর্ণ বোধ: জীবন, প্রেম, চাকরি ইত্যাদি এক্কেবারে পারফেক্ট চলছে। কোনও সমস্যাই নেই। উল্টে পূর্ণ সুখে স্বাস্থ্য ভাল থেকে বেশিই ভালর পথে চলেছে। এহেন মানসিক পরিপূর্ণতা জীবনে যৌনতার আকাঙ্খা কমিয়ে দেয়। অতিরিক্ত মানসিক সুখ এক্ষেত্রে যৌনসুখের অন্তরায়।
সমাধান: কোনও কিছুই অতিরিক্ত ভাল নয়। অতি পূর্ণতাও জীবনকে আনন্দহীন করে তুলতে পারে। জীবনে অ্যাডভেঞ্চার আনুন। যৌনতাকে উপভোগ্য করে তুলুন। সুখের সঙ্গে জীবনে নিছক প্রেম, আদর এবং দুষ্টুমিও বেশ জরুরি।

৫. শারীরিক ভাবে যৌন উত্তেজনা টের না পাওয়া: অনেক সময় শারীরিক কারণে বা হরমোনাল ডিজঅর্ডার থেকে যৌন আকাঙ্খা লুপ্ত হয়। এক্ষেত্রে শারীরিক মলন বা রতিক্রিয়ায় ভয়াবহ অরুচি দেখা দেয়।

সমাধান: এমন পরিস্থিতি তৈরি হলে, সবার আগে সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করুন। তাঁকে জানান আপনার সমস্যার কথা। অযথা নিজের অবস্থা না জানালে ভুল বোঝাবুঝি তৈরি হতে পারে। তাই নিজেদের মধ্যেকার বোঝাপড়া ঠিক রাখুন। আর অবশ্যই ডাক্তারের কাছে যান এবং নিজের যৌন অরুচির কারণ জানতে চেষ্টা করুন।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page