কেরোসিন ঢেলে প্রেমিকাকে পুড়িয়ে হত্যা

প্রকাশ্য রাস্তার ওপরেই গায়ে কেরোসিন ঢেলে সন্ধ্যা রাণি (২৫) নামে এক তরুণীকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তারই এক সাবেক পুরুষ সহকর্মীর বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভারতের হায়দরাবাদে বর্বরোচিত এই ঘটনাটি ঘটেছে।

পুলিশ জানায়, ওইদিন সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে অফিস থেকে বাসায় ফিরছিলেন সেকেন্দ্রাবাদ এলাকায় অ্যালুমিনিয়াম ফ্রেবিকেশন ইউনিটে রিসেপশনিস্ট হিসাবে কর্মরত সন্ধ্যা রাণি (২৫)। এসময় মোটরসাইকেলে করে এসে সন্ধ্যার সাথে কথা বলার জন্য তার গতিরোধ করে কার্তিক (২৮) নামে সাবেক এক সহকর্মী। একসময় রাস্তার ওপর দাঁড়ানো অবস্থাতেই তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এসময় দুইজনেই উত্তেজিত অবস্থায় কথা বলতে থাকেন। এরপর কার্তিক হঠাৎই রাগের মাথায় সন্ধ্যার গায়ে কেরোসিন ঢেলে দিয়ে তাতে আগুন ধরিয়ে দেন। এরপর কার্তিককে কেউ দেখে ফেলার আগেই সে ওই এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

 

এসময় সারা শরীরে আগুন নিয়ে রাস্তায় চিৎকার করতে থাকেন সন্ধ্যা। এতে স্থানীয়রা ছুটে এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু ততক্ষণে সন্ধ্যার শরীরের শতকরা ৬০ ভাগই অগ্নিদগ্ধ হয়ে যায়। এমন অবস্থায় ওই রাতেই তাকে স্থানীয় গান্ধী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭ দিকে মৃত্যু হয় সন্ধ্যার।

এই ঘটনায় ইতোমধ্যেই কার্তিককে আটক করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৭ (হত্যার চেষ্টা) নম্বর ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

 

জানা গেছে, দুই বছর আগে তারা দুইজনেই একই সংস্থায় কাজ করতেন। সেই সূত্রেই তাদের দুইজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। যদিও সম্প্রতি তাদের ওই সম্পর্কে ছেদ পড়ে। এনিয়ে গত কয়েক মাস ধরেই কার্তিক সন্ধ্যাকে উত্ত্যক্ত করতো বলেও জানা গেছে।

সেকেন্দ্রাবাদের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (নর্থ জোন) বি. সুমাথি জানান, ‘গত এক বছরে কার্তিকের কোনো চাকরি ছিল না, সে প্রচণ্ড মদ্য পান করতো। সন্ধ্যাকেও প্রচণ্ড উত্ত্যক্ত করতো। এমনকি সন্ধ্যাকে তার নিজের চাকরি ছেড়ে কার্তিককে বিয়ে করার জন্যও চাপ দিতো বলে পুলিশকে জানিয়েছে কার্তিক।

 

সম্প্রতি ফোনেও তাদের দুইজনের মধ্যে প্রচণ্ড ঝগড়া হয়েছিল এবং সেসময়ই কার্তিকের প্রস্তাবকে সরাসরি প্রত্যাখান করে সন্ধ্যা। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page