বেসরকারি উদ্যোক্তাদেরও পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে এগিয়ে আসতে হবে

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, দেশের সর্বত্র পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটতে শুরু করেছে। এক সময় এটি ছিল অবহেলিত। দেশের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য জানতে দেশি ও বিদেশি পর্যটকরা বাংলাদেশের প্রত্নতত্ত্বিক স্থান ও ঐতিহাসিক স্থান পরিদর্শন করছেন। তিনি বলেন, পর্যটন কেন্দ্রগুলোর এলাকার অবকাঠামোগত উন্নয়নের কাজ চলছে। এজন্য সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোক্তাদের পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

রবিবার বগুড়া সদরের নওদাপাড়ায় টিএমএসএস এর উদ্যোগে নবনির্মিত পাঁচ তারকা হোটেল মম ইন’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

হোটেল মম ইন’র হল রুমে ফলক উন্মোচন ও আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন টিএমএসএস’র নির্বাহী পরিচালক ড. হোসনে আরা বেগম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের অতিরিক্ত সচিব ড. নাসির উদ্দিন, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ইমরান, বগুড়ার জেলা প্রশাসক নূরে আলম সিদ্দিকী, বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তি, বগুড়া চেম্বার এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ’র সভাপতি মাসুদুর রহমান মিলন, পুন্ড্রু ইউনিভার্সিটির ভিসি ড. একেএম আজাদ উদ দৌলা প্রধান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিসিএল গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক টিএম আলী হায়দার।
আলোচনা সভায় মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন আরও বলেন, রাজধানীর বাইরে উত্তরাঞ্চলের বগুড়ায় পাঁচ তারকা হোটেল ‘মম ইন’ উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পুণ্ড্র নগরীতে দেশি বিদেশি পর্যটকদের সংখ্যা বৃদ্ধি ঘটবে। এজন্য বেসরকারি উদ্যোগ আরও বাড়াতে হবে। দেশের মানুষ ছুটি পেলে তারা কক্সবাজার, কুয়াকাটা ছাড়াও উত্তরাঞ্চলের বগুড়ার মহাস্থানগড়, নওগাঁর পাহাড়পুর, দিনাজপুরের কান্তজীর মন্দির, রংপুরের তাজহাট জমিদার বাড়িতে এদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য জানতে পরিদর্শনে আসেন। গত এক বছরে দেশের অভ্যন্তরীণ পর্যটকের সংখ্যা এক কোটি ছাড়িয়ে গেছে।

 

মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর বাংলাদেশে পর্যটন খাতে উন্নয়ন হয়েছে। দেশের ধারাবাহিক বাজেটে সবশেষে পর্যটন খাতের বরাদ্দ দেয়া হয়। তিনি বলেন, দেশের গার্মেন্টস শিল্পের চেয়েও প্রচুর বৈদেশিক মুদ্র অর্জন করতে পারে পর্যটন শিল্প। সরকার এজন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে।

অনুষ্ঠানে আলোচকবৃন্দ বগুড়া ও আশপাশের এলাকার পর্যটন শিল্প বিকাশের লক্ষে বগুড়ায় বিমানবন্দর স্থাপনের দাবির প্রেক্ষিতে রাশেদ খান মেনন বলেন, ইতোমধ্যে বগুড়ায় বিমান বন্দরটির রানওয়ে সম্প্রসারণের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। দেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশে পর্যটন এলাকাগুলোতে অতিথিসেবার মান বৃদ্ধির করতে হবে। ইতিমধ্যে যেসব বিমানবন্দর গুলো অচল ছিল সেগুলোকে সচল করার জন্য অবকাঠামো উন্নয়নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page