এক যুগ পর ভোট দিচ্ছেন বাঘা পৌরবাসী

সীমানা সংক্রান্ত জটিলতা কাটিয়ে দীর্ঘ এক যুগ পর রাজশাহীর বাঘা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তাই ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে ভোট দিচ্ছেন পৌরবাসী। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে এই ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

এ নির্বাচনে এবার দুটি রাজনৈতিক দল থেকে দলীয় প্রতীক নিয়ে লড়ছেন দুই মেয়র প্রার্থী। এছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৫৩ জন ও সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ১৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

পৌর এলাকার ১০টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে। ভোটগ্রহণের জন্য সবগুলো কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করেছে নির্বাচন কমিশন। তাই নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থাও। দুপুর ১২টা পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

পৌর এলাকার কয়েকটি ভোটকেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, তীব্র শীত উপেক্ষা করে ভোটাররা দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত নারীদের সংখ্যাই বেশি দেখা যায়। দুপুরের পর ভোটকেন্দ্রে পুরুষ ভোটারদের ভিড় বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাঘা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটার আসমা বেগম বলেন, খুব সকাল সকাল তিনি ভোটকেন্দ্রে এসেছেন ভোট দিতে। কিন্তু দীর্ঘ লাইন পেরিয়ে ভোট দিতেই তার সময় লেগেছে এক ঘণ্টা। তারপরেও দীর্ঘ দিন পর পৌর নির্বাচনের ভোট দিতে পেরে তিনি দারুণ খুশি।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার মজিবুল আলম জানান, শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণের জন্য প্রতি কেন্দ্রে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াও ১২ জন পুলিশ এবং ১৪ জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া টহল দিচ্ছে র‌্যাব ও বিজিবির কয়েকটি দল।

নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান মেয়র আক্কাছ আলী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার প্রতীক নৌকা। আর ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিএনপি থেকে মেয়র পদে লড়ছেন আব্দুর রাজ্জাক। নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার ৭৮৯ জন।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page