নববর্ষে যুক্তরাষ্ট্রের জনসংখ্যা হবে ৩২৭ মিলিয়ন

নতুন বছরের প্রথম দিন (২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের জনসংখ্যা হবে ৩২৭ মিলিয়ন তথা ৩২ কোটি ৭০ লাখ। ঠিক এক বছর আগের তুলনায় তা ০.৭১ শতাংশ তথা ২৩ লাখ বেশি। অর্থাৎ গড়ে প্রতি ৮ সেকেন্ডে একজন করে যুক্ত হয়েছে মোট জনসংখ্যায়। অপরদিকে মারা গেছেন প্রতি ১০ সেকেন্ডে একজন করে। এছাড়া গত এক বছরে প্রতি ২৯ সেকেন্ডে একজন করে ইমিগ্র্যান্ট এসেছে যুক্তরাষ্ট্রে।

 

যুক্তরাষ্ট্র সেনসাস ব্যুরো বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) এ তথ্য দিয়েছে। এতে বলা হয়, একইদিন অর্থাৎ ১ জানুয়ারি বিশ্বের জনসংখ্যা হবে ৭.৪৪ বিলিয়ন। এক বছরের ব্যবধানে বৃদ্ধির হার ১.০৭ শতাংশ।

সেনসাস ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশী জনঅধ্যুষিত ৪ অঙ্গরাজ্যের অন্যতম হলো নিউইয়র্ক। অপর রাজ্যসমূহ হচ্ছে ক্যালিফোর্নিয়া, টেক্সাস এবং ফ্লোরিডা।

 

ওয়াশিংটন ডিসিভিত্তিক থিঙ্কট্যাংক ব্রুকিংস ইনস্টিটিউটের ডেমগ্রাফার উইলিয়াম ফ্রে (William Frey, a demographer with the Brookings Institution based in Washington D.C ) এ প্রসঙ্গে জানায়, ‘১৯৩০ সালের পর গত দু’বছর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে মন্থর গতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। সে সময় অর্থনৈতিক পরিস্থিতির কারণে জনসংখ্যা বৃদ্ধিতে মন্থর গতি এসেছিল। আর এখন ঘটছে বয়স্ক লোকের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায়। এর ফলে এটাই প্রতিয়মান হচ্ছে যে, প্রত্যাশা অনুযায়ী কোনো কিছুই হচ্ছে না।’

সর্বশেষ সেনসাস দিবস ছিল ২০১০ সালের ১ এপ্রিল। ১০ বছর পর আবারও আনুষ্ঠানিকভাবে সেনসাস রিপোর্ট প্রকাশিত হবে যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের বিধি অনুযায়ী। অর্থাৎ আরও দু’বছর বাকি রয়েছে পরিপূর্ণ সেনসাসের। সর্বশেষ সেনসাসের পর যুক্তরাষ্ট্রের জনসংখ্যা বেড়েছে ১৮ মিলিয়ন অর্থাৎ এক কোটি ৮০ লাখ।

সেনসাস ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, আসছে ১ জানুয়ারি বিশ্বের জনসংখ্যা হবে ৭৪৪ কোটি ৪৪ লাখ ৪৩ হাজার ৮৮১ অর্থাৎ এক বছর আগের চেয়ে ৭ কোটি ৮৫ লাখ ২১ হাজার ২৮৩ জন বাড়বে। গত এক বছরে প্রতি সেকেন্ডে বিশ্বে জন্মগ্রহণ করেছে ৪.৩ জন। অপরদিকে মারা গেছেন ১.৮ জন।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page