বন্ধুর সঙ্গে নিজের স্ত্রীকে অসামাজিক কাজ

দিনে দিনে বিকৃতকামী লোকের সংখ্যা যেন বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে পশ্চিমা বিশ্বে এর প্রকোপ আরও বেশি দেখা যায়। মানুষের মন যে কত বিকৃত হতে পারে তা বোঝা এখন দায়।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ঝগড়া বা খুনের ঘটনা অবৈধ সম্পর্ক বা পরকীয়াকে কেন্দ্র করেই হয়ে থাকে৷ কিন্তু এক্ষেত্রে ঘটনা সম্পূর্ণ উল্টো৷ এক ব্যাক্তি সেক্স এক্সপার্টকে চিঠি লিখে জানিয়েছেন, বন্ধুর সঙ্গে নিজের স্ত্রীকে সহবাসে লিপ্ত দেখলে তার আনন্দ হয়৷

এই ব্যাক্তির বয়স ৩৩ এবং তার স্ত্রীর বয়স ২৮৷ এমনিতে তিনি তার স্ত্রীকে খুবই ভালবাসেন কিন্তু সহবাসের সময় তার থ্রীসাম করতেই বেশি ভাল লাগে৷ আসলে এই ব্যাক্তির জীবনে এটি হল একটি ফ্যান্টাসি৷ সেকারণেই তিনি বন্ধুদের সঙ্গে মিলে স্ত্রীয়ের সঙ্গে সহবাস করেন৷ গত ছয় মাস ধরে এই ব্যাক্তি থ্রীসামে লিপ্ত৷ কিন্তু, এই দম্পতি বর্তমানে মানসিক অবসাদে ভুগছেন৷

তাদের ধারণা তারা ক্রমাগত থ্রীসাম করার ফলে এর নেশাগ্রস্থ হয়ে নিজেদের সাধারন যৌন জীবন হারিয়ে না ফেলেন৷ থ্রীসাম চলাকালীন তারা একত্রে তিন থেকে চার ঘন্টা কাটান৷ অন্য পুরুষের সঙ্গে নিজের স্ত্রীকে সহবাসে লিপ্ত থেকে এই ব্যাক্তি আনন্দ অনুভব করেন এবং মনে করেন এতে কোন ভাবেই তার যৌন জীবন বিঘ্নিত হতে পারে না৷

বিশেষজ্ঞের মতে, ব্যক্তির বর্তমানে থ্রীসামে আনন্দ অনুভব হলেও তার গভীর চিন্তা ভাবনার প্রয়োজন৷ এতে দাম্পত্য জীবন নষ্ট হতেই পারে৷ স্ত্রীয়ের সঙ্গে আলোচনা করে তাকে আশ্বাস দেওয়া উচিত যে তিনি তাকে খুব ভালবাসেন এবং তাদের এগুলি বন্ধ করে দেওয়া উচিত৷

এই ব্যক্তিকে সঠিক নির্ণয় নিতে হবে৷ তার বোঝা উচিত, যদি বন্ধুর সঙ্গে স্ত্রীকে যৌন ক্রিয়ার লিপ্ত দেখে তার আনন্দ অনুভব হতে পারে তবে তার স্ত্রীও তাকে ভালবেসে সেই আনন্দ দিতে পারেন৷ এই দম্পতি থ্রীসাম ছাড়াও অন্যান্য কিছু যৌন প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে পারেন যাতে তাদের যৌন জীবন আরও অনেক বেশি রোমাঞ্চকর হতে পারে৷

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page