সমুদ্র তলদেশে পৃথিবীর প্রাচীনতম চোখের সন্ধান!

পৃথিবীর জন্ম কিংবা এর ইতিহাস নিয়ে মানুষের কৌতুহলের শেষ নেই। যত দিন যাচ্ছে মানুষ ততই পৃথিবীর ইতিহাসকে আবিষ্কার করছে। আর তারই জের ধরে সম্প্রতি একদল গবেষক সমুদ্রের নিচ থেকে আবিষ্কৃত জীবাশ্মের মধ্যে পৃথিবীর প্রাচীনতম চোখ পাওয়া গেছে বলে দাবি করেছেন।

গবেষকদের দাবি, ৫৩ কোটি বছর আগে সমুদ্রে নিচে বিলুপ্ত প্রাণীর জীবাশ্ময় এই চোখ ছিল। ইংল্যাণ্ডের ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের দাবি, আবিষ্কার করা জীবাশ্মের এই চোখের সঙ্গে বর্তমান অনেক প্রাণীর মিল খুঁজে পাওয়া গেছে। বিশেষ করে কাঁকড়া, মৌমাছি এবং ফড়িং সঙ্গে আবিস্কৃত বিলুপ্ত প্রাণীর জীবাশ্মের চোখের সঙ্গে অনেক মিল রয়েছে বলে দাবি গবেষকদের।

 

ইংল্যাণ্ডের ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা দীর্ঘ দিন ধরে সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকার কীট-পতঙ্গ নিয়ে গবেষণা করছেন। প্যালিওজোয়িক যুগের আবিষ্কার হওয়া জীবাশ্মের সঙ্গে সমুদ্র এলাকার মাকড়শা এবং কাঁকড়ার পূর্বপুরুষ বলে মনে করছেন গবেষকরা।

প্রাথমিকভাবে ফসিল পরীক্ষা করে ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানাচ্ছেন, আবিস্কার হাওয়া জীবাশ্মের চোখের অপটিকাল অর্গানের অংশের সঙ্গে অনেকটাই মিল রয়েছে বর্তমানের মৌমাছির চোখের অপটিকাল অর্গানের।

একই সঙ্গে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, জীবাশ্ম চোখের গঠন ও কাজের সঙ্গে সম্পূর্ণ আধুনিক চোখের উপকরণ একেবারে আলাদা। এই বিষয় ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ইয়ান ক্লার্কসন বলেন, ‘‌ আবিষ্কৃত জীবাশ্মটি খুবই ব্যতিক্রমী।

১০০ কোটি আগেও পৃথিবীজুড়ে এই ধরনের অনেক প্রাণী ছিল। ’‌
ইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার বিষয় বস্তু পিএনএএস জার্নালে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই আলোড়ন তৈরি হয়েছে গবেষক মহলে।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page