পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে ফেরি স্বল্পতা


মানিকগঞ্জঃ পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে নাব্যতা সংকটে অপরিকল্পিত ড্রেজিং ও ফেরি স্বল্পতার দরুন বিজয় দিবসে গন্তব্যে রওয়ানা দেয়া অসংখ্য যানহান ফেরি পারের অপেক্ষায় ঘাটে আটকে পড়েছে। পাটুরিয়ায় আটকে পড়া যানবাহনের দীর্ঘ লাইন মহাসড়কের প্রায় ১০ কিলোমিটার বিস্তৃত লাভ করে। পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় যানজট এড়াতে অসংখ্য ট্রাক ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উথলী মোড় থেকে আরিচামুখী সড়কের দু’ধারে দাঁড় করিয়ে রাখায় অন্যান্য যানবাহন চলাচলে বিড়ম্বনার শিকার হয়। ফেরিতে যাত্রীবাহী পরিবহন গুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হলেও পন্যবাহী গাড়ীর সংখ্য ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। যানজটে আটকে পড়া যাত্রীসাধারনস, পরিবহন মালিক-শ্রমিকসহ ঘাট সংশ্লিষ্টরা চরম দুর্ভোগ পোহায়। গতকাল শনিবার সন্ধায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উভয় ঘাটে পারের অপেক্ষায় যাত্রীবাহী বাস-কোচ, মাইক্রো-প্রাইভেটকারসহ প্রায় দু’হাজার পণ্যবাহী ট্রাক-লড়ী পারের অপেক্ষায় আটকে ছিল।

ফেরি সেক্টর বিআইডবিøউটিসি আরিচা অফিস সূত্রে জানা গেছে, এরুটে চলাচলকারী বহরের ছোট-বড় ২০ টি ফেরির মধ্যে যান্ত্রীকক্রুটিতে শাহ্জালাল, আমানতশাহ্, ভাষা শহীদ বরকত, বীরশ্রেষ্ট মতিউর রহমান ও গোলাম মাওলা নামে ৫টি রো-রো ফেরি নারায়নগঞ্জ ডকইয়ার্ডে মেরামতে রয়েছে। বাকি ১৫টির মধ্যে বীরশ্রেষ্ট হামিদুর রহমান চলাচলে অনুপযোগী হওয়ায় ভাসমান কারখানা মধুমতিতে নোঙ্গর করে রয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটি ও বিজয় দিবসে এরুটে পারের জন্য আসা বাড়তি পরিবহনের চাপে উভয় প্রান্তে যানজটের সৃস্টি হয়েছে। উর্দ্ধত্বন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে যাত্রী দুর্ভোগ লাগবে পণ্যবাহী ট্রাক-লড়ীর পাশাপাশি যাত্রীবাহী পরিবহন অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হচ্ছে। এতে ঘাটে অপেক্ষামান ট্রাক-লড়ীর সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

ঘাটে আটকে পরা পন্যবাহী ট্রা-লড়ীর চালকরা জানান, এরুটে ফেরি পারের জন্য অপেক্ষার প্রহর যেন কোন ভাবেই শেষ হয় না। একেকটি ট্রাক পারের জন্য দু থেকে তিন দিন পর্যন্ত ঘাট এলাকায় সিরিয়ালে থাকতে হয়। এছাড়া, বুকিং ও টিকিট কাউন্টারে নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত অর্থ না গুনলে তো কথাই নেই। পাশাপশি রয়েছে ঘাট এলাকায় দায়িত্বে থাকা ট্রাফিক পুলিশের উটকো ঝামেলা। সবমিলিয়ে বাড়তি অর্থের বিনিময়ে ফেরি পার হতে হচ্ছে সকলকে। তবে, এহেন অভিযোগ অস্বিকার করেছেন ঘাট সংশ্লিষ্ট ট্রাফিক পুলিশ ও বুকিং-সিরিয়াল কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা কর্তা ব্যাক্তিরা

এদিকে, এ রুটের ফেরি চালকরা জানিয়েছেন, পদ্মায় অস্বাভাবিক হারে পানি হ্রাস পাওয়ায় মূল চ্যানেল সংকির্ণ হয়ে এসেছে। সংকির্ণ চ্যানেলে অপরিকল্পিত ড্রেজিং কার্যক্রম পরিচালনা ও পাইপ লাইন সম্প্রসারনের ফলে ফেরি চলাচলে বিঘœ ঘটছে। ড্রেজারের পাইপ এরিয়ে শতর্কতার সহিত ফেরি পরিচালনায় অতিরিক্ত সময় ব্যয়সহ প্রতিটি ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কম হচ্ছে।

নাব্যতা সংকটে নিয়োজিত ড্রেজিং ইউনিট কর্মকর্তারা জানান, এরুটের নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে নিজস্ব ও ভাড়াকৃত ড্রেজার দিয়ে পলি অপসারনের কাজ চলছে। তবে, ভাসমান পাইপ ও অন্যান্য সরঞ্জামের কারনে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে না বলে দাবি করেন।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page