দুর্নীতি মামলায় খালেদার সর্বোচ্চ শাস্তি চায় রাষ্ট্রপক্ষ

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৩২ জন সাক্ষীর জবাবনবন্দি উপস্থাপন করে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করেছে রাষ্ট্রপক্ষ।

মঙ্গলবার রাজধানীর বকশীবাজারে কারা অধিদফতরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ আদালতে এই দাবি জানান রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল।

 

পরে খালেদা জিয়ার পক্ষে সময় আবেদন করা হলে বিচারক ড. আখতারুজ্জামান তা নাকচ করে পূর্বনির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী আগামীকাল বুধবার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের দিন ধার্য রাখেন। এই মামলায় আগামী বুধ ও বৃহস্পতিবার আসামিপক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবেন বলে জানা গেছে।

 

এর আগে, জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাজিরা দিতে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে গুলশানের বাসভবন থেকে খালেদা জিয়া আদালতে পৌঁছান।

 

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে ২০০৮ সালে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে রমনা থানায় আরও একটি মামলা করে দুদক। এই মামলার অন্য আসামিরা হলেন মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

 

অন্যদিকে, ২০১০ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে টাকা লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় একটি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলার অপর আসামিরা হলেন খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছের তখনকার সহকারী একান্ত সচিব ও বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।

your add hare

Comments are closed.

     আরো খবর

Our Like Page