হঠাৎ মেয়র আতিকের ঝটিকা অভিযান

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম রামপুরা মহানগর আবাসিক এলাকা ও পশ্চিম রামপুরা মোড়ে ঝটিকা অভিযান চালিয়েছেন। অভিযানে ফুটপাতে বিভিন্ন নির্মাণসামগ্রী দেখতে পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

 বুধবার (১৯ জানুয়ারি) ভোরে মেয়র এ অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় মেয়র একটি নির্মাণাধীন ভবনের মালামাল ফুটপাতে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে ভবনটির কেয়ারটেকারকে ডেকে পাঠান তিনি। অব্যবস্থাপনার কারণে বাড়ির নির্মাণকাজ বন্ধের নির্দেশ দেন। ফুটপাত দখলের দায়ে জরিমানারও নির্দেশ দেওয়া হয়।

তিনি যখন অভিযান শুরু করেন সড়ক তখনও মানুষের উপস্থিতিতে সরব হয়ে ওঠেনি, রাস্তা-ঘাট ফাঁকা। দোকানপাটও বেশি খোলেনি। এমন সময় কাউকে কিছু না জানিয়ে হঠাৎ রাজধানীর মহানগর আবাসিক এলাকা এবং পশ্চিম রামপুরা এলাকায় উপস্থিত হলেন ডিএনসিসি। সার্বিক অব্যবস্থাপনার চিত্র দেখে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থাগ্রহণের জন্য তার এই আকস্মিক পরিদর্শন। এর আগে সম্প্রতি একইভাবে তিনি মিরপুরের বেশ কিছু এলাকায় আকস্মিক পরিদর্শন করে অব্যবস্থাপনার বিষয়ে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন।

 এ সময় বিভিন্ন অব্যবস্থাপনার চিত্র তার নজরে আসে। তিনি দেখতে পান, একটি নির্মাণাধীন বাড়ির সামনে সড়কে ফুটপাত দখল করে নির্মাণসামগ্রী রাখা হয়েছে। এছাড়া ফুটপাত ও ড্রেন বন্ধ হয়ে আছে আবর্জনায়। অব্যবস্থাপনার কারণে তিনি তাৎক্ষণিক বাড়িটির নির্মাণকাজ বন্ধ করার নির্দেশ দেন। পাশাপাশি ফুটপাত দখলের দায়ে জরিমানার নির্দেশও প্রদান করেন।

অন্যদিকে, একটি মিষ্টির দোকানের সামনে ময়লা ফেলে রাখায় তিনি কর্তৃপক্ষকে ডেকে তাৎক্ষণিক পরিষ্কারের নির্দেশ প্রদান করেন। পাশেই সড়কে এবং ফুটপাত দখল করে বালু রাখায় মালিককে ডেকে কারণ জানতে চান এবং বালু জব্দ করার নির্দেশ দেন।

আকস্মিক পরিদর্শনের বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ফুটপাত দখল করে এক শ্রেণির মানুষ সেখানে নির্মাণসামগ্রী রেখেছে। এতে সাধারণ মানুষকে চলাচলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। তিনি বলেন, এই শহর আমাদের সবার। আমরা যদি নিজ নিজ জায়গা থেকে সবাই সচেতন না হই তাহলে শহরটার পরিবেশ আমরা সুন্দর করতে পারব না। তাই আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। সাধারণ মানুষের কথা ভাবতে হবে।

মেয়র একটি ভবনের কেয়ারটেকারকে বলেন, মানুষ রাস্তা দিয়ে হাঁটবে না? এটা কি তোমার রাস্তা? এটা জনগণের রাস্তা। এটা এখানে রাখলে কেন? ভেতরে রাখতে পারলা না? ভেতরে তোমাদের জায়গা নেই? এখন সব মালামাল থানায় যাবে।

এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, শহরের বিভিন্ন স্থানে অব্যবস্থাপনা দূর করতে মূলত মেয়র এমন আকস্মিক পরিদর্শনে যাচ্ছেন। যাতে সংশ্লিষ্ট সবাই সচেতন থাকেন এবং অব্যবস্থাপনা দূর করতে সিটি করপোরেশনসহ সবাই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করেন।

Back to top button