কক্সবাজারকে অপরাধের স্বর্গরাজ্য হিসেবে গড়ে তুলেছে রোহিঙ্গারা

২০১৭ সালের ২৫ আগষ্ট মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত হয়ে রোহিঙ্গারা এদেশে অনুপ্রেবশ করে। বিদেশী রাষ্ট্রের অনুরোধ ও মানবিক কারনে বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রায় ১১লাখ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেন৷ বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়ার পর থেকে পযটন শহর কক্সবাজার কে অপরাধের স্বর্গরাজ্য হিসেবে গড়ে তুলে।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) সকাল ১১টার সময় উখিয়ার একরাম মার্কেট চত্বরে আমরা কক্সবাজারবাসী নামের একটি সংগঠনের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এক বিশাল মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন। এসময় বক্তারা অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসন, রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের অপরাধ দমন, দেশি-বিদেশী এনজিওর ষড়যন্ত্র ও অপতৎপরতা বন্ধের দাবী জানান।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, রোহিঙ্গারা পুরো কক্সবাজার জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে। এ কারনে শহরে অপহরণ, খুন, ছিনতাই, ডাকাতি বেড়ে গেছে। ফলে পর্য়টকরা কক্সবাজার ভ্রমণে নিরুৎসাহিত হচ্ছে। এছাড়া রোহিঙ্গারা ব্যবসা-বানিজ্যে লিপ্ত।

তারা এদেশ থেকে হাজার হাজার টাকা পাচার করছে। উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪ টি রোহিঙ্গা শিবির কর্মরত এনজিও সংস্হায় চাকুরী করছে রোহিঙ্গারা। পুরো অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সংগঠনের যুগ্নসম্পাদক মুজিবুল হক।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তব্য দেন আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী, সহ সভাপতি সমির পাল, জেলা কৃষক লীগের নেতা ও সহ সভাপতি আনিসুল হক চৌধুরী , আনকিচ ফাতেমা ডেইজি, শিক্ষক নেতা হাসান জামাল রাজু, উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক রিয়াজুল হক রিয়াজ,

উখিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মুজিবুল হক আজাদ, সিনিয়র সহ সভাপতি এডঃ এটিএম রশিদ, পালংখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য ফজল কাদের ভুটো, সাংবাদিক রতন কান্তি দে, সুজন সভাপতি নুর মোহাম্মদ সিকদার, ইউপি সদস্য হেলাল উদ্দিন ও যুবলীগ নেতা আবুল হোসেন।

Back to top button