সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিশেষ নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্কুল-কলেজ শুরু ও ছুটির ব্যস্ততম সময়ে শিক্ষার্থীদের সড়ক পারাপারের জন্য প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিশেষ ট্রাফিক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দিয়েছেন। সেইসঙ্গে ব্যস্ততম সড়ক, রেললাইন বা ফুটপাত ধরে হাঁটার সময় শিক্ষার্থী,পথচারীদের সবাইকে আইন মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সড়কে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে উত্তেজিত হয়ে কেউ যেন গণপরিবহন ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ না করে আইন নিজের হাতে তুলে না নেন।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) সকালে গণভবনে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে মাধ্যমে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি সড়কে নিরাপত্তার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, ‘প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে নিজ উদ্যোগে বিশেষ ট্রাফিকের ব্যবস্থা করতে হবে।

তাদের নিজস্ব লোক থাকতে হবে যেন ছেলেমেয়েরা নিরাপদে সড়ক পার করতে পারে। ট্রাফিক পুলিশ স্কুল কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করবে। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন সড়কে শিক্ষার্থীদের মৃত্যুর পর নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের দাবি জোরদার করে তুলেন শিক্ষার্থীরা। সড়কে নানা অনিয়মও প্রকট হয়ে উঠে তখন। সরকারও সমালোচনার মুখে পড়ে।

শেখ হাসিনা সড়কে এই মৃত্যুতে সমবেদনা ও শোক জানিয়ে বলেন, ‘ছাত্রছাত্রীদের বলব, রাস্তায় চলাচল করার জন্য ট্রাফিক রুলস মেনে চলতে হবে। প্রতিটি স্কুল-কলেজে ট্রাফিক রুলস শিক্ষা দেওয়া উচিত।

সেই ব্যবস্থা নিতে হবে।’ মহাসড়কে টানা গাড়ি চালিয়ে চালক ও হেলপাররা ক্লান্ত হয়ে পড়লে তাদের জন্য নির্দিষ্ট দূরত্ব পরপর বিশ্রামাগার স্থাপনের কথাও ভাবছে সরকার।