ট্রাম্পের দাবি তিনিই হচ্ছেন সবচেয়ে সৎ মানুষ!

মধ্যবর্তী নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীগণের সমর্থনে ৯ এপ্রিল শনিবার রাতে নর্থ ক্যারলিনা স্টেটের সেলমা সিটিতে এক সমাবেশে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছেন, ইশ্বর এ যাবত যত মানুষ সৃষ্টি করেছেন তার মধ্যে সম্ভবত তিনিই সবচেয়ে সৎ মানুষ।

এ প্রসঙ্গে হোয়াইট হাউজে থাকাকালে নিজের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুকে (নাম প্রকাশ করেননি) উদ্বৃতি করে সমাবেশে বলেন, তিনি (ঐ বন্ধুটি) নাকি তাকে বলেছিলেন যে, তিনি (ট্রাম্প) খুবই সৎ প্রশাসক। ডেমক্র্যাটরা অনেক চেষ্টা করে, বিভিন্নভাবে তদন্ত করেও তাকে অসৎ বা দুষ্টু প্রেসিডেন্ট পর্যায়ে নিতে পারেনি।

তিনি (ট্রাম্প) অত্যন্ত ক্লিন ছিলেন। সে সময় দু’দফা অভিশংসন এবং ৬ জানুয়ারির ঘটনা নিয়ে বিচার বিভাগীয়, সংসদীয় তদন্ত চালিয়েও কোনো অন্যায়ের সাথে সম্পৃক্ততা পাননি। অর্থাৎ তিনি হচ্ছেন পৃথিবীতে সবচেয়ে ক্লিন ইমেজের মানুষ। ঐ বন্ধুটি তাকে আরো বলেছিলেন, ‘আপনি জানেন, আপনাকে বছরের পর বছর তদন্ত করা হয়েছে, লক্ষ লক্ষ পৃষ্ঠার নথি তৈরী করেও তারা দোষের কিছুই পায়নি। ট্রাম্প দাবি করেন, আমি সম্ভবত: সবচেয়ে সৎ মানুষ এবং সে চেষ্টাই করেছি।

তার বিরুদ্ধে তদন্ত চালানো নিউইয়র্ক স্টেটের অ্যাটর্নি জেনারেল লেটিশা জেমসের প্রতি ইঙ্গিত করে সাবেক এই প্রেসিডেন্ট ক্ষুব্ধচিত্তে বলেন, ডেমক্র্যাট শাসিত নিউইয়র্ক সিটিতে যে ধরনের হানাহানি, খুনাখুনী চলছে, জনজীবন দুর্বিসহ হয়ে পড়েছে, সেদিকে নজর দিন। শুধু শুধু রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে লাগবেন না।

বিপুল করতালির মধ্যে ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে ব্যর্থ প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিহিত করে বলেন, সীমান্ত সুরক্ষায় ব্যর্থ হয়েছেন, জ্বালানী এবং তেলের মূল্য নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হননি, মুদ্রাস্ফীতি চরমে উঠেছে, ডেমক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত সিটিসমূহে অপরাধের হার অবিশ্বাস্য রকম বেড়েছে, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ থামাতে পারছেন না, ব্যবসা-বাণিজ্য, কোনো ক্ষেত্রেই রিপাবলিকানদের মতো সাফল্য দেখাতে পারছেন না। রাষ্ট্র পরিচালনায় চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন বাইডেন ও তার ডেমক্র্যাটরা।

ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্টের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এনে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের পরিবেশ অবশ্যই রিপাবলিকানরা ক্ষমতায় এসে করবে।

Back to top button