ব্যাটে-বলে আইসিসির সেরা তালিকায় মুমিনুল

গত দুই দিনে আইসিসির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তালিকাগুলোয় বাংলাদেশের জন্য হতাশাই বেশি ছিল। বিশেষ করে সেরা ব্যাটিং আর বোলিং পারফরম্যান্সের তালিকায়। সেখানে বাংলাদেশের কারও নাম তো নেই-ই।

এদিকে আইসিসির আপসেটের তালিকায় বাংলাদেশের জয় আছে বটে, কিন্তু মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট জয়কে ‘আপসেট’ বলায় হয়তো অনেকের আপত্তি থাকতে পারে।

এখনো টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শেষ হতে এক বছরের কিছু বেশি বাকি। এ পর্যন্ত ইংল্যান্ড আর ভারত ছাড়া কোনো দেশই এখনো ৭ থেকে ৮টির বেশি টেস্ট খেলেনি। ভারত খেলেছে ১১টি, ইংল্যান্ড ১২টি। কিন্তু এখন পর্যন্ত যত টেস্ট হয়েছে, তাতেই তো রোমাঞ্চকর গল্পের কমতি হয়নি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে!

এবারের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অসাধারণ ব্যাটিং, বোলিং কিংবা জয়-হারের তালিকা প্রকাশ করেছে আইসিসি। গত দুই দিনে তাদের বিবেচনায় টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এখন পর্যন্ত মুগ্ধতা ছড়ানো ব্যাটিং আর বোলিং ইনিংসের তালিকা প্রকাশ করেছে আইসিসি।

কিন্তু সেই মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে মুমিনুলের ব্যাটিং-বোলিংই সেরা অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের তালিকায় ঠাঁই পাওয়ায় হয়তো গর্ব হবে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের। সেরা পাঁচ অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের তালিকায় রবীন্দ্র জাদেজা, ম্যাট হেনরি, শার্দূল ঠাকুর ও কেশব মহারাজের পর যে মুমিনুলের নামও আছে।

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট তো বটেই, সব সংস্করণ মিলিয়ে ৩৩তম ম্যাচে বাংলাদেশের প্রথম জয়। সেটিতে অধিনায়ক হিসেবে সামনে থেকে কী দারুণভাবেই না নেতৃত্ব দিলেন মুমিনুল হক! প্রথম ইনিংসে মুমিনুলের ২৪৪ বলে ৮৮ রান বাংলাদেশকে পথ দেখিয়েছে।

এতটুকুই মুমিনুলকে আলাদা করে রাখার জন্য যথেষ্ট ছিল, কিন্তু বল হাতে আগেই নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংসে দারুণ ধাক্কা দিয়েছেন মুমিনুল। উইকেট মাত্র দুটি পেয়েছেন, কিন্তু সে দুটিই ওই মুহূর্তে ছিল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ-১২২ রান করে ফেলা ডেভন কনওয়ে ও ৭৫ রান করা হেনরি নিকোলস। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের ৮ উইকেটের জয় নিশ্চিত হওয়ার সময়ও ক্রিজে ছিলেন মুমিনুল।

Back to top button