বাংলাদেশ থেকে কতজন পাচ্ছেন হজের সুযোগ জানালো সৌদি

চলতি বছর বিশ্বের কোন দেশ থেকে কতজন মানুষ হজের সুযোগ পাবেন সেই তালিকা প্রকাশ করেছে সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহবিষয়ক মন্ত্রণালয়। সৌদি আরবের সংবাদমাধ্যম ওকাজ এবং সৌদি গ্যাজেট একাধিক সূত্রের বরাত দিয়ে কোটা প্রকাশের খবর দিয়েছে। ঘোষণা অনুসারে, বাংলাদেশ থেকে ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন মুসল্লি অংশ নিচ্ছেন এবারের হজে।

করোনা মহামারির কারণে গত দুই বছর বিদেশিদের হজে অংশগ্রহণ বন্ধ ছিল। চলতি মাসের শুরুর দিকে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় সৌদি আরব। এবার ১০ লাখ মুসল্লি পবিত্র হজে অংশ নিতে পারবেন বলে আগেই জানিয়েছিল সৌদি আরব।

সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালায় জানিয়েছে, ইন্দোনেশিয়া থেকে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ১ লাখ ৫১ জন মুসল্লি এবার হজে অংশ গ্রহণ করবেন। দেশ হিসেবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মুসল্লি অংশ নেবেন পাকিস্তান থেকে। দেশটি থেকে ৮১ হাজার ১৩২ জন এবার হজ করতে পারবেন। তৃতীয় অবস্থানে ভারতের ৭৯ হাজার ২৩৭ এবং চতুর্থ অবস্থানে বাংলাদেশ থেকে অংশ নেবেন ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন মুসল্লি। এবারের হজে সবচেয়ে কম সংখ্যক ২৩ জন মুসল্লি অংশ নিচ্ছেন আফ্রিকার অ্যাঙ্গোলা থেকে।

সৌদির হজ মন্ত্রণালয় বলেছে, আরব দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৩৫ হাজার ৩৭৫ জন হজের সুযোগ পাবেন মিসর থেকে। ইরানের ৩৮ হাজার ৪৮১ জন এবং তুরস্কের ৩৭ হাজার ৭৭০ জন হজ করতে পারবেন।

সূত্র বলছে, এ বছর যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হজের কোটা নির্ধারণ করা হয়েছে ৯ হাজার ৫০৪ জনের। এছাড়া রাশিয়া থেকে ১১ হাজার ৩১৮ জন, চীনের ৯ হাজার ১৯০ জন, থাইল্যান্ডের ৫ হাজার ৮৮৫ জন এবং ইউক্রেনের ৯১ জন নাগরিক হজ করতে পারবেন।

এর আগে, সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ঘোষণায় বলা হয়, চলতি বছর মোট ১০ লাখ মানুষ হজ করার সুযোগ পাবেন। এর মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় ৮৫ শতাংশ অর্থাৎ ৮ লাখ ৫০ হাজার বিদেশিকে এবার হজের অনুমতি দেওয়া হবে। সৌদি আরব থেকে দেড় লাখ মানুষ হজের অনুমতি পাবেন।

এ বছর হজযাত্রীদের জন্য দুটি শর্ত নির্ধারণ করেছে সৌদি আরব। বিদেশি হজযাত্রীদের বয়স ৬৫ বছরের নিচে এবং সৌদি আরবের টিকাদান কর্মসূচিতে যেসব টিকা ব্যবহারের অনুমতি আছে সেগুলোর কোনো একটির দুই ডোজ নেওয়ার সনদ থাকতে হবে।

এছাড়া অনুমোদিত যাত্রীদের অবশ্যই সৌদি আরবের বিমানে ওঠার অন্তত ৭২ ঘণ্টা আগে করোনার পিসিআর টেস্ট করাতে হবে এবং সেই টেস্টে নেগেটিভ সনদ পেতে হবে।

Back to top button