আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতকে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে হবে —শিল্পমন্ত্রী

বাংলাদেশে নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে (এনবিএফআই) নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হচ্ছে। তবে এ খাত বিকাশের অনেক সুযোগ রয়েছে। এজন্য খাতটিকে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে হবে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংক বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। আগামী দিনগুলোতে এনবিএফআই ব্যাংকগুলোর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে বড় ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা যায়। দেশের প্রথম ‘এনবিএফআই মেলা ২০২২’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, এমপি।

গতকাল সকালে ঢাকার প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে দিনব্যাপী এ মেলার উদ্বোধন করেন মন্ত্রী। যৌথভাবে মেলাটি আয়োজন করে বণিক বার্তা ও বাংলাদেশ লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানিজ অ্যাসোসিয়েশন (বিএলএফসিএ)।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রযুক্তির ব্যবহার আরো বাড়ানোর পরামর্শ দিয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এনবিএফআই মেলা ২০২২ দেশের প্রথম আর্থিক প্রতিষ্ঠান মেলা। এ মেলার মাধ্যমে আর্থিক খাত সম্পর্কে দেশের মানুষ আরো ভালোভাবে জানবে এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর জবাবদিহিতা আরো বাড়বে। আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে তাদের কার্যক্রম গ্রাম পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে। ব্যাংকের পাশাপাশি নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা উন্নয়নে বড় ভূমিকা রাখছে। কোনো এনবিএফআই তাদের ঋণের পোর্টফোলিওর ৩৫ শতাংশ পর্যন্ত এসএমই ঋণ দিয়ে আসছে, যা খুবই উৎসাহজনক। এক্ষেত্রে এসএমই খাত বিকাশে তারা আরো এগিয়ে আসবে বলে প্রত্যাশা করি।

বাংলাদেশে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের যাত্রা ১৯৮১ সালে। খাতটির চার দশকের ইতিহাসে এ প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো আর্থিক প্রতিষ্ঠান মেলা। মেলার ১৭টি স্টলে অংশ নেয়া প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের বিভিন্ন সেবা ও অফার দর্শনার্থীদের সামনে তুলে ধরে। ‘এনবিএফআই মেলা ২০২২’-এর পাঁচটি প্যাভিলিয়নে অংশ নেয় ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং ফাইন্যান্স করপোরেশন লিমিটেড (ডিবিএইচ), আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড ও ইউনাইটেড ফাইন্যান্স লিমিটেড। ১২টি স্টলে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ ফাইন্যান্স লিমিটেড, বে লিজিং এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, সিভিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট ফাইন্যান্স কোম্পানি লিমিটেড (আইআইডিএফসি), লংকান অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেড, মেরিডিয়ান ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড, মাইডাস ফাইন্যান্সিং লিমিটেড, ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল লিমিটেড, স্ট্রাটেজিক ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড, হজ্ব ফাইন্যান্স কোম্পানী লিমিটেড ও বণিক বার্তা। মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্যে বণিক বার্তা সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ বলেন, সারা বিশ্বেই দেখা গেছে, গ্রাহকদের বিশেষ ধরনের সেবা দেয়ার জন্য যে অর্থনীতি যত এগিয়েছে, সেখানে এনবিএফআইয়ের ভূমিকা ও ব্যাপ্তি তত বেড়েছে। আজকের এই মেলা বাংলাদেশে এনবিএফআইয়ের একটা বড় রোল ঘোষণা করতে যাচ্ছে বলে আমরা মনে করি।

বিএলএফসিএর চেয়ারম্যান এবং আইপিডিসির সিইও ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মমিনুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে এই প্রথমবারের মতো ব্যাংক-বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি মেলা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। যার মাধ্যমে আমরা সর্বসাধারণের মাঝে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন পণ্য ও সেবা পরিচিত করে তোলার সুযোগ পেয়েছি। এনবিএফআই খাতের অন্যতম দুর্বলতা হলো সাধারণ মানুষ খুব বেশি এগুলো সম্পর্কে জানে না। সেটি আমরা কিছুটা হলেও এই মেলার মাধ্যমে দূর করার চেষ্টা করব।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বিএলএফসিএর ভাইস চেয়ারম্যান ও আইআইডিএফসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. গোলাম সরওয়ার ভূঁইয়া বলেন, বর্তমানে এনবিএফআই যেসব সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে, সেগুলো কাটিয়ে উঠতে আজকের এ মেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

মেলায় আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের বিভিন্ন পণ্য ও সেবার প্যাকেজ আগত দর্শনার্থীদের সামনে তুলে ধরে। দর্শনার্থীদের জন্য মেলা উপলক্ষে ঋণ ও সঞ্চয় স্কিমে ছিল বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা। সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবী, শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ এতে অংশ নেয়। মেলার অংশ হিসেবে বিকালে অনুষ্ঠিত হয় ‘অর্থনৈতিক উন্নয়নে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম।

সন্ধ্যায় এক বর্ণাঢ্য আয়োজনে মেলার সমাপন ঘোষণা ও ঋণগ্রহীতাদের চেক প্রদান করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। সন্ধ্যা ৭টায় বণিক বার্তার ব্র্যান্ডিং বিভাগের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয় র্যাফল ড্র।

Back to top button