কুষ্টিয়ায় সম্পত্তি ভাগাভাগি নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ঝাউদিয়া গ্রামে জ্ঞাতিগোষ্ঠীর মধ্যে শরিকানা সম্পত্তি ভাগাভাগি নিয়ে সৃষ্ট দ্বন্দ্বের জেরে চাচা ও চাচাতো ভাইদের হামলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জসিম উদ্দিন (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঝাউদিয়া বাজারের অদূরে হিন্দুপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে এই হামলার ঘটনা ঘটে। নিহত জসিমের ছোট ভাই রশিদ (৩২) আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। নিহত জসিম স্থানীয় বাসিন্দা পাতারি মন্ডলের ছেলে এবং পেশায় ভ্যানচালক।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শনিবার সকালে নিহতের চাচা লালন মন্ডল ও তার ছেলেদের সঙ্গে বাড়ির জায়গা ভাগাভাগি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই ঝগড়া, তর্কাতর্কি ও শোর চিৎকার হচ্ছিলেন। একপর্যায়ে চাচা লালনসহ তার ছেলেরা জসিম ও তার ছোট ভাই রশিদের উপর দেশীয় ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা করে।

এ সময় জসিমের মাথায় হাঁসুয়ার কোপ লেগে গুরুতর জখম হয়ে জসিম মাটিতে পড়ে যান। জসিমকে বাঁচাতে গিয়ে ভাই রশিদও লাঠির আঘাত ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে পড়ে যান। পরে স্থানীয় প্রতিবেশীদের সহায়তায় পরিবারের লোকজন আহত দুই ভাইকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক জসিমকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য পলাশ মেম্বর বলেন, জসিম-রসিদদের সঙ্গে তার চাচা ও চাচাতো ভাইদের জায়গা-জমি ভাগাভাগি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। ইতিপূর্বে একাধিকবার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা আপস মীমাংসা করে দিলেও পরে তা কোনো পক্ষই মানে না। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান রতন জানান, শনিবার ১১টার দিকে ঝাউদিয়া গ্রামে মার্ডারের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। এ ঘটনায় এখনো কেউ মামলা করতে থানায় আসেনি। এই হত্যাকাণ্ডে যারা জড়িত তাদেরও গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

Back to top button