বিশাল আকারের ‘সমুদ্র ড্রাগনে’র ফসিলের সন্ধান

আমি কাউন্টি কাউন্সিলে ফোন দিলাম এবং বললাম, আমার মনে হয়, একটা ডাইনোসর পেয়েছি আমি।’ এভাবেই বলছিলেন জো ডেভিস। তিনি ইংল্যান্ডের রুটল্যান্ড ওয়াটার ন্যাচারেল রিজার্ভে কাজ করেন। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে রিজার্ভের একটি সংরক্ষিত এলাকায় কাজ করার সময় তিনি দেখতে পান, কাদার নিচ থেকে ব্যতিক্রম কিছু একটা উঁকি দিচ্ছে।

কিন্তু এটা কোনো ডাইনোসর ছিল না। এটা ছিল দীর্ঘ ১০ মিটার লম্বা ডাইনোসর-সদৃশ সমুদ্রের শিকারি প্রাণী ইচতিসোরের।যুক্তরাজ্যে আবিস্কৃত হওয়া এ ধরনের প্রাণীগুলোর মধ্যে এটা সবচেয়ে পুরাতন। ডায়নোসরের সঙ্গে এ প্রাণীগুলোও বহু কোটি বছর আগে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। জো ডেভিস বিবিসি ওয়ার্ল্ড নিউজকে জানান, তিনি ভেবেছিলেন।

যে, কাদার মধ্যে এটা কোনো পাথর অথবা শক্ত কোনো বস্তু। কিন্তু পরে তিনি দেখতে পান এটা অন্য কিছু। ডেভিস বলেন, ‘তারপর আমরা এমন একটা কিছু দেখলাম, যেটা অনেকটা চোয়ালের হাড়ের মতো। পরে জানা গেলো, এটা একটি ইচতিসোরের ফসিল। উষ্ণ রক্তের, বাতাসে শ্বাস নেয়া সামুদ্রিক শিকারি প্রাণী।

এ প্রাণীটি ২৫ মিটার পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। এরা ৯ কোটি থেকে ২৫ কোটি বছর আগে পৃথিবীর বাসিন্দা ছিল। যেখানে ফসিল উদ্ধার করা হয়েছে, সেখানে নেয়া হয় ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবাশ্মবিদ ড. ডিন লোম্যাক্সকে। তিনি এ ফসিল শনাক্তে সহায়তা করেন।

তিনি বলেন, ‘এ আবিস্কার একেবারেই অভূতপূর্ব।’ ড. ডিন লোম্যাক্স বলেন, ‘আকৃতি ও পূর্ণতা বিচার করলে এটা ব্রিটেনের জীবাশ্মবিদ্যার ইতিহাসে অন্যতম আবিষ্কার।