গাজীপুরে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে বাবা গ্রেপ্তার

গাজীপুর মহানগরের গাছা থানাধীন শরীফপুর এলাকা থেকে কিশোরী মেয়েকে (১৭) ধর্ষণের অভিযোগে শনিবার বাবা গ্রেপ্তার হয়েছেন। গ্রেপ্তার পেশায় একজন রং মিস্ত্রি (৩৬)। এ ঘটনায় ভিক্টিমের মামা বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গাছা থানায় মামলা করেছেন।

এামলার বরাত দিয়ে গাছা থানার ওসি মো. ইসমাইল হোসেন জানান, শরীফপুর এলাকায় মা-বাবার সঙ্গে বসবাস করতেন ভিক্টিম (১৭)। বাবা রং মিস্ত্রি এবং মা হলোন পোশাক শ্রমিক। ভিক্টিমের বাবা বিভিন্ন সময় মা-মেয়েকে অন্যায় অত্যাচার করতেন। কিন্তু সংসারের সুখের কথা চিন্তা করে মা-মেয়ে তা সহ্য করে মুখ বুঝে ছিলেন।

গত ২৭ মে সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভিক্টিম ও তার বাবাকে বসত ঘরে রেখে মা তার কর্মস্থলে যান। এক পর্যায়ে মেয়ে তার শয়ন কক্ষে শুয়ে থাকা অবস্থায় বাবা তার ঘরে ঢুকে ঘরের দরজা আটকে দেয় এবং মেয়েকে ঝাপটাইয়া ধরে ও ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরে দুপুরে মা বাসায় আসলে মেয়েকে কান্নাকাটি করতে দেখতে পান। এসময় কান্নার কারণ জিজ্ঞাসা করলে ভিক্টিম তার মাকে সব খুলে বলেন।

এ মামলায় আরো উল্লেখ করা হয় ইতোপূর্বে ২০১৮ সালের ১৮ নভেম্বরে সকালে ভিক্টিমের মা ভাড়া বাসায় তাদের রেখে গেলে বাবা অনুরূপে দরজা আটকে ধর্ষণ করেন। পরে বিষয়টি জানতে পেরে লোকলজ্জার ভয়ে মেয়েকে দাদার বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয়। এসময় তার বাবাও ঢাকার সাভারে চলে যান। এমতাবস্থায় ৫ মাস আগে ভিক্টিম মেয়ে তার দাদার বাড়ি থেকে গাজীপুরে মায়ের কাছে চলে আসেন।

গত ২৪ মে ভিক্টিমের বাবা আবার গাজীপুরের বাসায় চলে আসেন এবং ২৭ মে মেয়েকে একা ঘরে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরদিন ২৮ মে ভিক্টিমের মামা তার ভগ্নিপতির বিরুদ্ধে গাছা থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর বাবাকে গ্রেপ্তার এবং আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

যাযাদি/এসএইচ

Back to top button