স্ন্যাপচ্যাটের গলিপথে সাইবার যৌনতার রমরমা

ব্যবসা বাড়াতে এবার স্ন্যাপচ্যাটকে পাখির চোখ করল পর্নস্টাররা। স্ন্যাপক্যাশ অ্যাপের সাহায্যে যৌন আবেদনপূর্ণ সেলফি বিক্রি করে মোটা রোজগার করছে বিশ্বের পর্ন ইন্ডাস্ট্রি। জানা গিয়েছে, এরই মধ্যে গ্রাহকের সংখ্যা ২০ কোটি ছাড়িয়েছে।

মাত্র গত নভেম্বর মাসে বাজারে এসেছে ‘স্ন্যাপক্যাশ’। তবু অল্প সময়েই বাজার ধরে ফেলে নজির গড়ে ফেলেছে এই অ্যাপ, সৌজন্যে অশ্লীল ছবির কারবারিরা।

জানা গিয়েছে, অ্যাপ কাজে লাগিয়ে গ্রাহকদের নগ্ন ছবি বেচে কোটি কোটি ডলার কামাচ্ছেন দুনিয়ার তাবড় পর্নস্টার। হিসেব বলছে, গ্রাহককে নগ্ন ছবি পাঠাতে ছবি পিছু মাত্র এক থেকে পাঁচ ডলার দর হাঁকছেন তারা। তবে যৌন আবেদন পূর্ণ ভিডিও পেতে হলে খরচ পড়ছে কিছু বেশি।

সম্প্রতি সংবাদ মাধ্যমের রিপোর্ট জানিয়েছে, আপাতত স্ন্যাপচ্যাট গ্রাহকদের এক ছোট অংশ যৌন ছবি ও ভিডিওর জন্য ডলার খরচ করলেও অচিরেই বাড়বে এই সংখ্যা।

তবে সংস্থা নিজে এই সমস্ত পর্ন কনটেন্ট বেচাকেনা করে না। উল্টে নাবালকদের হাতে যাতে এই সব ছবি বা ভিডিও না পৌঁছায়, তার জন্য দোরদার প্রচার করছে স্ন্যাপচ্যাট।

অ্যাপ ব্যবহারকারীদের পর্নোগ্রাফির আসক্তি দূর করতে তৈরি হয়েছে নানা শর্তাবলী। প্রয়োজনে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হচ্ছে আপত্তিকর ছবি পাঠানোর অ্যাকাউন্টগুলোও।

তবে তাতে বিশেষ ফল মেলেনি বলে জানা গিয়েছে। আইনের বজ্র আঁটুনি গলে ছিদ্রাণে¦ষীরা নিয়মিত নগ্ন কনটেন্ট অবাধে পাচার করে রমরমিয়ে ব্যবসা করছে। অ্যাপের আঁওতা থেকে কীভাবে যৌনতাকে দূরে রাখা যা, আপাতত তাই নিয়ে বিশেষ চিন্তায় স্ন্যাপচ্যাট।

Back to top button