শ্রীলঙ্কাতেই হবে এশিয়া কাপ

অর্থনৈতিক সংকট ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে শ্রীলঙ্কায় এবারের এশিয়া কাপ আয়োজন নিয়ে শঙ্কা ছিল। সেক্ষেত্রে এটি বাংলাদেশে আয়োজনের সম্ভাবনা ছিল। তবে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমের খবর, সব শঙ্কা কাটিয়ে শ্রীলঙ্কার মাটিতেই শুরু হচ্ছে এশিয়ান ক্রিকেট শ্রেষ্ঠত্বের ১৮তম আসর। এ বিষয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সমর্থনও পাচ্ছে লঙ্কানরা।ভেন্যুতে ঠিক রেখে পূর্বনির্ধারিত সূচিতে কিছুটা পরিবর্তন আসতে পারে। আগের সূচি অনুসারে টুর্নামেন্টটা শুরু হওয়ার

কথা ২৭শে আগস্ট। তবে তিন দিন এগিয়ে আগামী ২৪শে আগস্ট এশিয়া কাপ শুরু করতে চায় আয়োজকরা। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের একটি সূত্র স্থানীয় সংবাদমাধ্যম দ্য নিউজকে জানিয়েছে, ‘আন্তর্জাতিক সূচিতে সংঘর্ষ এড়াতে পাকিস্তানসহ অংশগ্রহণকারী কয়েকটি দল সূচিতে কিছুটা পরিবর্তনের অনুরোধ জানিয়েছে। সেপ্টেম্বরের শেষদিকে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাতটি টি-টোয়েন্টি খেলবে পাকিস্তান। ২৪শে আগস্ট শুরু হয়ে ৭ই সেপ্টেম্বর এশিয়া কাপ শেষ হলে পাকিস্তানের জন্য সুবিধা হবে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য ঠিক সময়ে দেশে ফিরতে পারবে তারা। চার বছর পর মাঠে গড়াতে যাচ্ছে এশিয়া কাপ। নানা জটিলতার কারণে ২০২০ সালে এশিয়া কাপ মাঠে গড়ায়নি। এশিয়া কাপে মোট ছয়টি দল অংশ নেবে।

স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান এবং বাছাই পর্ব থেকে একটি দল। এশিয়া কাপ সাধারণত ওয়ানডে ফরম্যাটেই হয়ে থাকে। তবে ২০১৬ সালে প্রথমবার টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে হয়েছিল। ২০১৮ সালে সর্বশেষ এশিয়া কাপ হয়েছিল ওয়ানডে ফরম্যাটে। ওই আসরে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। রানার্সআপ হয় বাংলাদেশ। এবারের এশিয়া কাপ হবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। চলতি বছর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আর বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে এশিয়া কাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

Back to top button