স্বাধীন সাংবাদিকতায় বাধা হয় এমন কোনো আইন দেশে হবে না

স্বাধীন সাংবাদিকতায় বাধা হয় এমন কোনো আইন দেশে হবে না বলে মন্তব্য করেছেন আইন, বিচার ও স্বাধীন সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএসআরএফ) আয়োজিত অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএসআরএফ-এর সভাপতি তপন বিশ্বাস। সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাসউদুল হক।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন সংবিধান উপহার দেন, তখন দুটি বিষয় অন্তর্ভুক্ত করেছেন। একটা হলো- বাক স্বাধীনতা, আরেকটি সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা। যেটা আমাদের সংবিধানে মৌলিক অধিকার হিসেবে গ্যারান্টি। সেই জিনিসটাই পাল্টে দেওয়া হবে, তা হয় না। আমি দৃঢ়ভাবে বলতে পারি, দেশে এমন কোনো আইন হবে না, যা স্বাধীন সাংবাদিকতায় বাধা হয়ে দাঁড়ায়।

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপপ্রয়োগে বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ আইনে অনেক অহেতুক মামলা করা হচ্ছিল। এ প্রেক্ষাপটে ২০১৯ সালে আমি বলেছিলাম। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনুরোধ করার পর তিনি ব্যবস্থা নিয়েছেন। আইনমন্ত্রী আরও বলেন, এ আইনে মামলা হলে সঙ্গে সঙ্গে কাউকে যেন গ্রেপ্তার না করা হয়। আমরা সেই ব্যবস্থাও নিয়েছি। এর ফলে এখন যত্রতত্র গ্রেপ্তার হচ্ছে না। দরকার হলে এ আইনটি সংশোধন করা হবে। মন্ত্রী বলেন, এটি সাংবাদিকতায় বাধা সৃষ্টির জন্য করা হয়নি। টেকনোলজির উন্নয়ন হয়েছে। এর মাধ্যমে যে অসুবিধার সৃষ্টি হচ্ছে, সেগুলোও মোকাবিলা করতে হবে। সেজন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি করেছি।

বঙ্গবন্ধুকে কেউ অপমান আর অবমূল্যায়ন করার চেষ্টা করলে আওয়ামী লীগ সেটা দাঁড়িয়ে দেখবে না বলে জানান আইনমন্ত্রী। তিনি বলেন, সেটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেজন্যই এসব বন্ধ করার জন্য একটা আইন থাকা উচিত। ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট না করলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ভুল ব্যবহারে অভয়ারণ্য হবে দেশ। তবে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টের যে কয়েকটি জায়গায় কিছু অসামঞ্জস্য আছে বলে মনে করা হয় সেটার বিষয়ে সচেতন সরকার। সেসব ধারার যাতে অপব্যবহার না হয় সেটা নিয়ে প্রয়োজনে কাজ করবে সরকার, প্রয়োজনে আইনটি সংশোধন করা হবে, বলেন আনিসুল হক।

Back to top button