হবু স্বামীকে গ্রেফতার করে বাহবা পাওয়া সেই পুলিশ কর্মকর্তা এবার নিজেই গ্রেফতার

ওএনজিসিতে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বেশ কয়েকজনের সঙ্গে আর্থিক প্রতারণা করার অভিযোগে গত মাসের (৫ মে) তারিথে তার হবু স্বামীকে গ্রেফতার করেন পুলিশ কর্মকর্তা জুনমণি রাভা। এর পরেই আলোচনায় উঠে আসেন তিনি। এর জন্য প্রশংশিতও হন তিনি। খবর: আনন্দবাজার।

গ্রেফতারের আগে আসামের নগাও জেলার উপ পরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব ছিলেন জুনমণি। তাকে গত দু’দিন ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করছিল পুলিশ। মাজুলি জেলার একটি আদালত তাকে ১৪ দিনের বিচার বিভাগীয় হেফাজতে থাকার নির্দেশ দিয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানাযায়, জুনমণিকে মাজুলি জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।আরও জানা যায়, স্থানীয় দুই ঠিকাদারের অভিযোগের ভিত্তিতে জুনমনিকে গ্রেফতার করা হয়। ওই দুই ঠিকাদার পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন, তারা জুনমণির প্রাক্তন বাগদত্তা রানা পোগাগের সঙ্গে আর্থিক চুক্তি করেছিলেন।

জুনমণিই তাদের সঙ্গে রানার যোগাযোগ করিয়ে দিয়েছিলেন। ঠিকাদারদের অভিযোগ রানা তাদের টাকা নিয়ে জালিয়াতি করেন এবং এই ঘটনায় জুনমণিও সমানভাবে জড়িত ছিলেন। এরপরই পুলিশ জুনমণিকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।প্রসঙ্গত, ওএনজিসিতে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কয়েক জনের সঙ্গে আর্থিক প্রতারণা করার অভিযোগে ৫ মে রানাকে গ্রেফতার করেন জুনমণি।

মাজুলিতে থাকার সময়ই জুনমণির সঙ্গে আলাপ ও প্রেম হয়েছিল রানার। রানা নিজেকে ওএনজিসির জনসংযোগ বিভাগের কর্তা হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন। গত বছর ৮ অক্টোবরে ধুমধাম করে তাঁদের বাগদান পর্ব সম্পন্ন হয়। এর পর নগাঁওতে বদলি হয়ে রানার কুকীর্তির কথা জানতে পারেন বলে জুনমণি দাবি করেছিলেন। রানার ব্যাগ থেকে ওএনজিসির ভুয়া সিল ও নথিপত্র পেয়ে তাঁকে গ্রেফতার করেন জুনমণি। রানা বর্তমানে মাজুলি জেলে বন্দি রয়েছেন।

সালাউদ্দিন/সাএ

Back to top button