কুষ্টিয়ায় শিক্ষকের উপর হামলায় পৌরসভার কাউন্সিলরসহ ৩ জন কারাগারে

কুষ্টিয়া লাহিনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলামের উপর হামলাকারী কুষ্টিয়া পৌরসভার ২১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সোহেল রানা আশাসহ ৩ জনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রবিবার দুপুরের দিকে কুষ্টিয়ার বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত হাজির হয়ে আসামিরা জামিনের আবেদন জানালে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
জামিন না মঞ্জুর হওয়া আসামিরা হচ্ছেন কুষ্টিয়া শহরতলীর মোল্লাতেঘড়িয়া এলাকার আফজাল হোসেনের ছেলে কুষ্টিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর সোহেল রানা আশা (৪৫), একই এলাকার মৃত নিয়ামত আলীর ছেলে ফারুক (৪৫) ও পলান মন্ডলের ছেলে আনছের আলী (৩৫)।

কুষ্টিয়া জজ কোর্টের সরকারী কৌসুলী (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী জামিন নামঞ্জুর হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আদালত সূত্রে জানা যায়, কুষ্টিয়া শহরতলীর লাহিনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ ও বিদ্যালয়ের আঙ্গিনা দখল করে কাউন্সিলর আশা ঠিকাদারী কাজের মালামাল রেখে বিদ্যালয়ের পরিবেশ বিনষ্ট করে আসছিলেন। এ ছাড়াও বিদ্যালয় চলাকালীন সময় মেশিনের মাধ্যমে বিকট শব্দে ইট ভাঙ্গা ও বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎ অবৈধভাবে ব্যবহার করে আসছিলেন। চলতি বছরের গত ৩১ মার্চ সকাল ১০টার সময় লাহিনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম এ ঘটনার প্রতিবাদ জানালে কাউন্সিলর আশাসহ আসামিরা প্রধান শিক্ষকের উপর হামলা চালিয়ে আহত করে। পরদিন প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে কাউন্সিলর আশাসহ ৪ জনের নামে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং -০১।
এ বিষয়ে মামলার বাদী প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম জানান, আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। আমার উপর হামলাকারী আসামিদের সঠিক বিচারের দাবি জানাচ্ছি ।

Back to top button