মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যুর প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় ছাত্রলীগ নেতা সাজিদ ইশরাকের মোটর সাইকেল চাপায় ভান্ডারিয়া বন্দর ণুরানী তালীমুল কুরআন মাদ্রাসার দ্বিতীয় শ্রেণির মেধাবী ছাত্র আবু তালহা (৮) নিহতের ঘটনায় বুধবার (৮ জুন) দ্বিতীয় দফায় মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

আজিজিয়া ইসলামীয়া আদর্শ কওমী মাদ্রাসার শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের আয়োজনে সকাল ১০টায় উপজেলার ২ নম্বর নদমুলা শিয়ালকাঠী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন সড়কের প্রায় পৌঁণে এক কি.মি. সড়কে ঘন্টাব্যপি মানববন্ধন ও সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান হাওলাদার, মাওলানা জাকারিয়া আল ফরিদী, মাওলানা মুফতী আবু হানিফ, মাওলানা মাহামুদুল হক ও মো. বাদশা জোমাদ্দার প্রমুখ। এ মানববন্ধন এবং সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে অংশ নেন নিহত তালহার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভান্ডারিয়া বন্দর ণুরানী তালীমুল কুরআন মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ছাড়াও স্থানীয় বিভিন্ন স্তরের মানুষ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, উশৃঙ্খল ভাবে চলাফেরা করা ছাত্রলীগের এই নেতা গত ৩ জুন বিকালে তার এক বন্ধুর পিরোজপুর-ল, ১১-২৪৭১ নম্বরের ইয়ামাহা এম ১৫ একটি গাড়ি নিয়ে বেপরোয়া গতিতে চলখালী থেকে ভান্ডারিয়া আসার পথে নদমুলা শিয়ালকাঠী ইউনিয়নের বাইপাস সড়কের পার্শ্বে চাপা দেয় আবু তালহা নামের মাদ্রাসা ছাত্রকে। মেধাবী ছাত্র আবু তালহার মৃত্যুতে ফুঁসে উঠেছে মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ। পাশা পাশি যে সড়কে প্রাণ গেল তালহার সে সড়কটি তার নামে করার দাবিও জানানো হয় সমাবেশে।

এদিকে এ ঘটনায় গত ৪ জুন নিহতের পিতা মো. হাবিবুর রহমান উকিল বাদি হয়ে সাজিদ ইশরাককে প্রধান আসামী করে সড়ক পরিবহন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর ছাত্রলীগের ওই নেতার সহপাঠিরা গিয়ে স্থানীয়দের দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে গাড়ি নিয়ে আসার পর থেকে ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ সহ পলাতক রয়েছে।

এ বিষয়ে ভান্ডারিয়া থানার ওসি মো. মাসুমুর রহমান বিশ্বাস জানান, সব ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আসামীকে গ্রেফতের জোর চেষ্টা অব্যাহত আছে।

শাকিল/সাএ

Back to top button