যে কারণে জায়েদকে সবার সামনে কষে চড় মেরেছেন ওমর সানি

গান বাজছে, পার্টি চলছে, তারকাদের পার্টি। আছে নায়ক-নায়িকা, গায়ক-গায়িকা, ভিলেনসহ সিনেমা সংশ্লিষ্ট সবাই। অতিথিরা আসছেন বিয়ের আয়োজনে। হঠাৎ করেই এক অতিথি এসে বসালেন অন্য আরেক অতিথির গালে চড়। সেই চড়ে এতই জোর, পড়ে গেলেন তিনি। পাঠক হয়তো মনে হচ্ছে, সিনেমার কোনো দৃশ্যধারণ চলছে? একদমই না। বাস্তবেই ঘটে গেছে এমন ঘটনা। অভিনেতা ও প্রযোজক ডিপজলের ছেলের আনুষ্ঠানিক বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় রাজধানীর একটি কনভেনশন সেন্টারে। সেখানেই ঘটেছে এই ঘটনা।
ওমর সানী-জায়েদ খান সিনেমার শিল্পীদের সামনেই জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ওমর সানি এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন। অনুষ্ঠানে ঢুকেই জায়েদ খানের গালে চড় মেরেছেন তিনি। জায়েদ খানও নিজের কোমর থেকে পিস্তল বের করে গুলি করতে গিয়েছেন ওমর সানিকে। পরে সেখানে থাকা অন্যরা দুজনকে কোনোভাবে থামান। যদিও গণমা চড় মারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওমর সানি।

তিনি বলেন, কিছুদিন আগে আমার বউয়ের (চিত্রনায়িকা মৌসুমী) সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছে জায়েদ। তাকে আমি মনে মনে খুঁজতেছিলাম। ডিপজলের ছেলের বিয়েতে দেখা হয়ে গেলে নিজের রাগ আর সামলাতে পারিনি। কিন্তু চড় মারার পর জায়েদ পিস্তল বের করে আমাকে গুলি করতে চেয়েছিল। এটা তখন সেখানে থাকা সবাই দেখেছে। এটা সত্য। এর বেশি কিছু আপাতত বলতে চাচ্ছি না। পরেরটা পরে দেখা যাবে।’

তবে পিস্তল বের করে গুলি করা কিংবা ওমর সানির চড় মারার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন জায়েদ খান। তিনি বলেন, না এ ধরণের কিছু ঘটেনি। এ বিষয়ে এখন কিছু বলতে চাই না। এদিকে একাধিক সূত্র থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন চলচ্চিত্রশিল্পী নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরটিভি নিউজকে বলেন, ‘কিছুদিন আগে আমরা যতদূর জানি, চিত্রনায়িকা মৌসুমীর সঙ্গে নাকি জায়েদ খান খারাপ আচরণ করেছেন। এটা নিয়ে জায়েদের ওপর আগে থেকেই ওমর সানী ভীষণ বিরক্ত ছিল। এর ফলেই এমন ঘটনা ঘটেছে।’

তারা আরও বলেন, ‘এমনকি খারাপ ব্যবহার করার কারণে খল অভিনেতা ডিপজলের কাছে বিচারও দিয়েছিল। তখন নাকি ডিপজল বলেছিলেন, ‘থাক, নিজেদের মধ্যে এসব বাদ দাও। মারামারি করার কোনো দরকার নাই। আমি জায়েদের সঙ্গে কথা বলব। সামনে যাতে করে জায়েদ আর মৌসুমীকে কোনো ডিস্টার্ব করবে না। মৌসুমীর কাছেও যাবে না সে।’ তবে এ বিষয়ে এখনও ডিপজল কোনো কথা বলেননি।

Back to top button