বিক্ষোভের মুখে ‘অগ্নিপথের’ নিয়ম শিথিল করল ভারত সরকার

বিক্ষোভের মুখে সশস্ত্র বাহিনীতে যোগ দেওয়ার নতুন নীতি ‘অগ্নিপথ’-এ পরিবর্তন আনল ভারত সরকার। ‘অগ্নিপথ’ নিয়ে দেশটির আটটি প্রদেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। বিক্ষোভের জেরে এরই মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সংঘর্ষে আহত হয়েছেন প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন। সারা দেশে ১২টির মতো ট্রেনে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। টানা তিন দিন ধরে চলা আন্দোলনের পর অবশেষে আজ শনিবার নিয়ম পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে মোদি সরকার।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ভারতের কেন্দ্রীয় সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী (সিএপিএফ) এবং আসাম রাইফেলসে ‘অগ্নিবীরদের’ জন্য ১০ শতাংশ আসন সংরক্ষণের ঘোষণা দিয়েছে ভারত সরকার। এ ছাড়া আধাসামরিক এ দুটি বাহিনীতে নিয়োগের বয়সসীমাও ৩ বছর শিথিল করার ঘোষণা দিয়েছে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তবে প্রথম ব্যাচের অগ্নিবীরেরা পাঁচ বছর পর্যন্ত বয়সসীমার ছাড় পাবেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সিএপিএফে ‘অগ্নিবীরদের’ অগ্রাধিকার দেওয়া হবে-এমন ঘোষণা দেওয়ার কয়েক দিন পর এই নতুন ঘোষণা এলো। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নতুন সামরিক নিয়োগ প্রকল্পের বয়সসীমা এরই মধ্যে একবার পরিবর্তন করে ২১ থেকে ২৩ বছর করেছে। যেহেতু গত দুই বছরে কোনো নিয়োগ হয়নি, তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বর্তমানে ভারতের আধাসামরিক বাহিনীর পাঁচটি শাখায় ৭৩ হাজারেরও বেশি পদ খালি রয়েছে। বাহিনীগুলো হচ্ছে, বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ), সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স (সিআরপিএফ), ইন্দো তিব্বত বর্ডার পুলিশ (আইপিবিপি), শাস্ত্র সীমা বল (এসএসবি) এবং সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্স (সিআইএসএফ)। এর পাশাপাশি সিএপিএফ এবং আসাম রাইফেলসে পদ খালি রয়েছে ৭৩ হাজার ২১৯টি এবং আঞ্চলিক পর্যায়ের পুলিশ বাহিনীতে পদ খালি রয়েছে ১৮ হাজার ১২৪ টি।

Back to top button