নুরুলকে দেখে শিখতে বললেন সাকিব

অ্যান্টিগা টেস্টের চতুর্থ দিনের সকালেই ৭ উইকেটের হার বরণ করে নেয় বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের যে ৩৫ রান দরকার ছিল, সেটা তুলতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি। ২৭ মিনিট আর সাত ওভারের মধ্যে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ক্যারিবীয়রা। ব্যাটিং ব্যর্থতার কারণেই এই পরাজয়।

তাই দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানসংগ্রাহক নুরুল হাসান সোহানের কাছ থেকে অন্য ব্যাটারদের শিক্ষা নেওয়া উচিৎ বলে মনে করেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ১০৯ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর সাকিবের সঙ্গে সোহানের ১২৩ রানের জুটি ক্যারিবীয়দের আরেকবার ব্যাটিংয়ে নামানো নিশ্চিত করে। অবশ্যই দুজনের কাছেই আরো বড় ইনিংস ও জুটির দাবি ছিল। সেই চাহিদা তাঁরা মেটাতে ব্যর্থ না হলে হয়তো ক্যারিবীয়দের চ্যালেঞ্জের মুখেও ফেলা যেত। অন্তত চতুর্থ ইনিংসের শুরুতে খালেদ আহমেদের বোলিং সেই আফসোসই বাড়িয়েছে কেবল।

আরো বড় ইনিংস খেলতে না পারলেও নুরুল যেমন ব্যাটিং করেছেন, তাতেই অন্যদের জন্য তা ‘শিক্ষামূলক’ হয়ে উঠেছে বলে মনে করেন সাকিব, ‘ওর ইনিংস থেকে অনেক কিছুই শেখার আছে। (যে অবস্থায় ব্যাটিংয়ে নামতে হয়েছিল) নুরুল ভীষণ চাপে ছিল। তার পরও সে নিজেকে মেলে ধরেছে এবং দারুণ দৃঢ়তা দেখিয়েছে। নুরুল যে পন্থায় ব্যাটিংটা করেছে, দলের অন্য ব্যাটাররাও সেটিই গ্রহণ করলে পরের ম্যাচে ভালো ক্রিকেট খেলতে পারবে।

১০৩ রানে প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যাওয়ার পর এবং ক্যারিবীয়দের মাত্র ৮৪ রানের লক্ষ্য দিয়েও বোলাররা যেমন বোলিং করেছেন, তাতে তাঁদের প্রাপ্য প্রশংসায় কোনো কার্পণ্য করতে দেখা গেল না সাকিবকে, ‘আমাদের সব বোলারই হৃদয় উজাড় করে দিয়ে বোলিং করেছে। বোলারদের নিয়ে কোনো অভিযোগ থাকার তাই কারণই নেই। ব্যাটিংই আসলে আমাদের ডুবিয়েছে।

Back to top button