পুরুষ হৃদয়ে ঝড় তোলা কে এই ‘নেটজগতের রানি’ সোফিয়া!

ভারতে নেটমাধ্যমের তারকা বলতে যাদের নাম প্রথমেই মনে পড়ে তাদের মধ্যে শীর্ষে সোফিয়া আনসারি। টিকটকে জনপ্রিয়তা অর্জন করে সোফিয়া রাতারাতি নেটমাধ্যমের তারকার তকমা পান। পুরুষ হৃদয়ে ঝড় তোলা কে এই ‘নেটজগতে রানি’ সোফিয়া? টিকটকের পাশাপাশি ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুকেও সমান জনপ্রিয় সোফিয়া। সোফিয়ার অনেক অনুরাগীই তাকে ‘নেটজগতে রানি’ বলে মনে করেন। ভারতে টিকটকের উপর নিষে’ধা’জ্ঞা জারি করার পরও সোফিয়ার জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েনি। সোফিয়ার মতো নেটমাধ্যমে আরও অনেক মহিলা তারকা রয়েছেন। কিন্তু এত কম সময়ে কী ভাবে সবাইকে ছাপিয়ে এত জনপ্রিয়তা অর্জন করলেন সোফিয়া?

নেটমাধ্যমে সাহ’সী ছবি পোস্ট করার কারণে তিনি পুরুষ ভক্তদের কাছে বিশেষ জনপ্রিয়। তিনি নতুন কী ছবি দিলেন তা দেখতে পুরুষ অনুরাগীরা নিয়মিত নেটমাধ্যমে গিয়ে তার অ্যাকাউন্টে ভিড় জমান। রূপ এবং আবেদনময়ী চেহারার মাধ্যমে ইন্টারনেটে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছেন বছর পঁচিশের সোফিয়া।

ছবি ছাড়াও নেটমাধ্যমে স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও দেওয়ার কারণেও তিনি সমান জনপ্রিয়। বেশ কিছু মিউজিক ভিডিয়োতেও সোফিয়া অভিনয় করেছেন। সোফিয়ার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে মূলত সাহ’সী ছবিই দেখা যায়। আর এই ছবির আ’গুনেই পুড়ে ছাই হয় তার পুরুষ অনুরাগীদের মন। সম্প্রতি সোফিয়ার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ব্ল’ক করা হয়। অনেকের মতে, একাধিক সা’হসী ছবি এবং ভিডিও দেওয়ার কারণে, ইনস্টাগ্রামের নির্দেশিকাবিধি ল’ঙ্ঘ’ন হয়েছে। আর সেই কারণেই তার অ্যাকাউন্ট ব্লক করা হয় সংস্থার তরফ থেকে। তবে তিনি ফের একটি নতুন অ্যাকাউন্ট চালু করেছেন।

তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে প্রায় ৯০ লক্ষ ফলোয়ার ছিল। অনেকেই এটা জেনে আবাক হবেন যে সোফিয়ার আদি বাড়ি পশ্চিমবঙ্গে। তবে পরে তার পরিবার পশ্চিমবঙ্গ ছেড়ে গুজরাতের বডোদরায় চলে যায়। সোফিয়া ১৯৯৬ সালের ৩০ এপ্রিল গুজরাতের বডোদরায় জন্মগ্রহণ করেন। সেখানকারই এক স্থানীয় কলেজ থেকে তিনি স্নাতক হন। বর্তমানে তার ঠিকানা মুম্বাই। সোফিয়ার বার্ষিক আয় ৭০ থেকে ৯০ লক্ষ টাকা। তবে ভালবাসা পাওয়ার পাশাপাশি অনেকের চ’ক্ষুশূ’লও হয়ে ওঠেন সোফিয়া। নেটমাধ্যমে সাহ’সী ছবি শেয়ার করার জন্য বিদ্রুপের শিকারও হয়েছেন

Back to top button