হাজার ছাড়িয়ে ২৪ ঘন্টায় করোনা শনাক্ত আরও বাড়ল

দেশে আবারো বাড়ছে মহামারি করোনার সংক্রমণ। কিছুদিন আগে ভাইরাসটি নিম্নমুখী হওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছিল সাধারণ মানুষ। তবে হঠাৎ করেই গত কয়েক দিন ধরে আক্রান্ত ও মৃত্যু ফের ঊর্ধ্বমুখী। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৯ হাজার ১৩৫ জনে। একই সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ১ হাজার ৩১৯ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৬০ হাজার ৫২৮ জনে। শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৩২ শতাংশ। এর আগে বুধবার (২২ জুন) শনাক্ত হয়েছিলো ১ হাজার ১৩৫ জন।   বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১২৭ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৬ হাজার ২৩২ জন।

এদিকে বিশ্ব আবারো বাড়ছে মহামারি করোনার সংক্রমণ। কিছুদিন আগে ভাইরাসটির দাপট নিম্নমুখী হওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছিল মানুষ। কিন্তু হঠাৎ করেই গত কয়েক দিন ধরে আক্রান্ত ও মৃত্যু ফের ঊর্ধ্বমুখী। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭ লাখ ৬ হাজার ৯৬৬ জন। এ সময় ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৫১৯ জনের। আজ বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) সকালে করোনার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪ কোটি ৬৫ লাখ ৩৬ হাজার ৪০৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬৩ লাখ ৪৫ হাজার ৪৬৪ জন। এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় তাইওয়ানে ১৭১ জনের মৃত্যু এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৫২ হাজার ২৪৬ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ১৯ হাজার ৭৬২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১০৫ জনের। একই সময়ে উত্তর কোরিয়ায় সংক্রমিত হয়েছেন ১৫ হাজার ২৬০ জন এবং এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৭৩ জনের। যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছে ৩৯০ জন এবং শনাক্ত হয়েছে ৭৬ হাজার ৭৬৪ জনের।

ইতালিতে আক্রান্ত ৫৩ হাজার ৯০৫ জন এবং মৃত ৫০ জন। রাশিয়ায় আক্রান্ত ৩ হাজার ৫৮ জন এবং মৃত্যু ৬৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ফ্রান্সে আক্রান্ত ৭৭ হাজার ৯৬৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৬৬ জনের। ব্রাজিলে মৃত ১৭৬ জন এবং আক্রান্ত ৭০ হাজার ২৮৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় অস্ট্রেলিয়ায় মৃত ৬২ জন এবং আক্রান্ত ৩২ হাজার ৯৮৯ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় কানাডায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ৩১৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের। একই সময়ে থাইল্যান্ডে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ২ হাজার ৩৮৭ জন এবং ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। চিলিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ৫৪৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১০ জনের। জাপানে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ৯৯৮ জন এবং মৃত্যু ১২ জনের। একই সময়ে যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৩২ হাজার ৭২৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৭৭ জনের।

Back to top button