আরশোলার উপদ্রবে অতিষ্ঠ! রইল সহজেই বাড়ি থেকে আরশোলা দূর করার অব্যর্থ উপায়

কথাতেই রয়েছে সুস্থ থাকার চাবিকাঠি হল পরিষ্কার পরিছন্ন থাকা। তবে শুধুমাত্র নিজে পরিষ্কার পরিছন্ন থাকলেই হয় না। থাকার পরিবেশ থেকে শুরু করে খাওয়াদাওয়া ও স্নান পরিষ্কার ভাবেই করতে হয়। এদিকে অনেকেই বাড়িতে খাবার খোলা রাখতেও ভয় পান। কেন? কারণ বাড়িতে অতিরিক্ত আরশোলার উপদ্রব। উড়ে এসে খাবারে বসে পড়লেই সেই খাবার ফেলে দিতে হবে। এছাড়া আরশোলা বাড়িতে থাকলে নানা ধরণের রোগেরও সঞ্চার হতে থাকে বাড়িতে।

বাড়িকে আরশোলা মুক্ত করার জন্য অনেকেই অনেক পদ্ধতি ব্যবহার করেন। তাঁর কিছু কাজ করলেও সেটা সাময়িক হয়। অথবা কাজই করে না। আজ আপনাদের জন্য বাড়ি থেকে আরশোলা দূর করার সহজ ও একেবারে অব্যর্থ উপায় নিয়ে হাজির হয়েছি। চলুন দেখে নেওয়া যাক. কিভাবে আরশোলার থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।

চিনি Sugar
১.চিনি আর বেকিং সোডা : চিনি তো প্রতিটা বাড়িতেই থাকে। আর বেকিং সোডা বাড়িতে কম বেশি ব্যবহার হয়েই থাকে। তবে পোকামাকড়ের হাত থেকে মুক্তি পেতে বা আরশোলা দূর করতেও এটা কিন্দু দারুন কাজ করে। একটা পাত্রে চিনি গুঁড়ো আর বেকিং সোডা মিশিয়ে নিয়ে বাড়ির যে সমস্ত জায়গায় আরশোলার উৎপাত বেশি সেখানে ছড়িয়ে দিন। চিনির গন্ধে এসে এই মিশ্রণ খেলেই মরবে আরশোলা। আর মুক্তি মিলবে চিরতরে।

২. তেজপাতা : বাড়িতে তরি তরকারি রান্নার জন্য তেজপাতা তো ব্যবহার সবাই করেন। আর দামও খুবই সামান্য। এই তেজপাতা দিয়েও আরশোলার হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। কারণ তেজপাতার তীব্র গন্ধ আরশোলা সহ্য করতে পারে না।
তাই আরশোলার হাত থেকে কম খরচে মুক্তি পেতে চাইলে তেজপাতা গুড়িয়ে নিন। আর সেই গুঁড়ো বাড়ির কোনায় কোনায় ছড়িয়ে দিন। সাথে যেখানে আরশোলার উপদ্রব বেশি সেখানেও ছড়িয়ে দিন। তাহলেই দেখবেন আরশোলা বাপ বাপ বলে পালিয়েছে।

৩. বোরিক পাউডার : ঔষধি হিসাবে ব্যবহৃত বোরিক পাউডার কিন্তু আরশোলার থেকে মুক্তি পেতে ম্যাজিকের মত কাজ করে। এটা ব্যবহারের জন্য একটা পাত্রে বোরিক পাউডার, কিছুটা আটা আর কিছুটা কোকো পাউডার গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এরপর এই মিশ্রণ খেলেই আরশোলার মারা পড়বে।

Back to top button