কমার ঘোষণাতেই শেষ, কমেনি সয়াবিন তেলের দাম

ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের অজুহাতে দেশে দফায় দফায় বাড়ানো হয়েছিলো সয়াবিন তেলের দাম। সরকার বার বার বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর অবস্থানে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েও ব্যাবসায়ি সিন্ডিকেটের কাছে শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয়। এরআগে তিন দফায় ৫৫ টাকা দাম বাড়ার পর রবিবার (২৬ জুন) দুপুরে লিটারে ছয় টাকা পর্যন্ত কমানোর ঘোষণা দেয় ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন। এ ঘোষণার পরও বাজারে কমেনি সয়াবিনের দাম।খুচরা বাজারে আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে সয়াবিন তেল।

ব্যাবসায়িদের অভিযোগ নতুন দামের পণ্য ডিলাররা সরবরাহ না করায় দাম কমেনি। নতুন নির্ধারণ করা নতুন দাম অনুযায়ী প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেলের দাম ১৮০ টাকা, বোতলজাত ১৯৯ টাকা এবং ৫ লিটারের বোতলজাত সয়াবিনের দাম দাঁড়াবে ৯৮০ টাকায়। আজ সোমবার (২৭ জুন) থেকে নতুন এ দাম কার্যকর করার কথা থাকলেও বাজারে আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে সয়াবিন তেল। রাজধানীর বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীদের ভাষ্য, নতুন দামের তেল এখনো বাজারে আসেনি। পূর্বের দামের তেলই বিক্রি হচ্ছে বেশিরভাগ স্থানে। ডিলারদের থেকে নতুন দামের তেল পাওয়া গেলে বাজারে নির্ধারিত দামে বিক্রি হবে।

মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট বাজারের ব্যবসায়ী সামিউল ইসলাম বলেন, বলেন, সরকার তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিলেও আমাদের আগের দামে তেল কিনতে হচ্ছে। আমরা যদি কম দামে না কিনতে পারি তাহলে কিভাবে বাজারে সরকারে নির্ধারিত মুল্যে তেল বিক্রি করবো। আরেক ব্যবসায়ী ইয়াকুব সাদ্দাম হুসাইন জানান, বাজারে যদি দাম বাড়ে তাহলে ডিলাররা তড়ঘড়ি করে সেটা কার্যকর করে। কিন্তু যখন শুন্ব দাম কমেছে, তখন তাদের কোন খবর পাওয়া যায়না।প্রতিদিন ডিলার থাকলেও আজ (সোমবার) ডিলার আসেনি। দুই-একজন এলেও নতুন দামের তেল তারা এখনো পাননি।

পরিচয় গোপন রাখা শর্তসাপেক্ষে একটি কোম্পানির ডলার জানান, যেহেতু নতুন দাম ঘোষনা করা হয়েছে, সে দামের প্রোডাক্ট বাজারে আসতে কিছুদিন সময় লাগবে। কোম্পানি নতুন রেটের প্রোডাক্ট ছাড়লেই আমরা সবখানে সাপ্লাই দিতে পারবো। কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ী রকিবুল হাসান জানান, আমরা আগের দামের তেলগুলো এখনো বিক্রি করছি। কিছুদিন পর থেকে হয়তো কোম্পানি থেকে নতুন দামের তেল সাপ্লাই পাবো।

প্রসঙ্গত, আজ সোমবার বাজারে খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হয়েছে লিটারপ্রতি ১৮৫ টাকায়। বোতলজাত সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ২০৫ টাকা এবং ৫ লিটারের বোতলের দাম ৯৯৭ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

Back to top button