৬ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকলেও সরকারি চাকরিতে বহাল

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় চার মাসের ছুটি নিয়ে ছয় বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকার অভিযোগ উঠেছে নাজমা খাতুন নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। তিনি মর্ণেয়া ইউনিয়নের লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

দীর্ঘদিন অনুপস্থিত থাকার পরও চাকরিতে বহাল তবিয়তে রয়েছেন তিনি। প্রধান শিক্ষকের এমন অনুপস্থিতিতে ভেঙে পড়েছে বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন নাজমা খাতুন। যোগদানের দেড় বছর পর ২০১৬ সালের জুলাই মাসে দুই মাসের ছুটি নিয়ে তিনি চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে যান। সেখানে থাকা অবস্থায় তিনি আরও দুই মাসের ছুটি নেন।

অভিযোগ রয়েছে, তার ছুটি শেষ হলেও তিনি বিদ্যালয়ে আসেননি এবং ছুটিও নেননি। দীর্ঘদিন ধরে বিনা ছুটিতে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকলেও তিনি চাকরিতে বহাল তবিয়তে রয়েছেন।

বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসে অবগত করা হলেও ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকসহ এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। তারা চাকরির বিধিমালা অনুযায়ী ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান।

বর্তমানে লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন তারেক রহমান। তিনি বলেন, আমাদের হেড ম্যাডাম চিকিৎসার জন্য চার মাসের ছুটি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন। সেখানে তিনি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী স্বামীর সঙ্গে বসবাস করছেন। তখন থেকেই আমি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নাগমা সিলভিয়া খান বলেন, বিষয়টি আমি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। কয়েকবার তদন্তও করা হয়েছে। কিন্তু কী কারণে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি, তা আমার বোধগম্য নয়। তবে আমি আবারও বিষয়টি ঊর্ধ্বতনদের অবগত করব।

Back to top button