২৪ দিনে প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন ১৬ হাজার কোটি টাকা

গত অর্থবছরে ছয় লাখের বেশি নতুন কর্মি বিদেশে গেছেন। তারা কাজ শুরু করেছেন। দেশে টাকা পাঠাতে শুরু করেছেন। এছাড়া বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে মধ্যপাচ্যের দেশগুলোর অর্থনীতি চাঙা হয়েছে। সেখানে কর্মরত আমাদের প্রবাসীরা বেশি আয় করছেন। দেশেও বেশি টাকা পাঠাতে পারছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংক সোমবার (২৫ জুলাই) রেমিট্যান্সের সাপ্তাহিক যে তথ্য প্রকাশ করেছে, তাতে দেখা যাচ্ছে ১ জুলাই শুরু হওয়া ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম ২৪ দিনে ১৭৩ কোটি ৯০ লাখ (১.৭৪ বিলিয়ন) ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। টাকার অঙ্কে যার পরিমাণ ১৬ হাজার ৮৭৮ কোটি টাকা।

এই অর্থবছরে প্রতিদিন গড়ে ৭ কোটি ২৪ লাখ ৫৮ হাজার কোটি ডলারের বেশি রেমিট্যান্স পাঠাচ্ছেন প্রবাসীরা।

আগের ২০২১-২২ অর্থবছরে প্রবাসী আয়ে মন্দা দেখা দেয়। পুরো অর্থবছরে ২ হাজার ১০৩ কোটি (২১.০৩ বিলিয়ন) ডলার এসেছিল; গড়ে প্রতিদিন ৫ কোটি ৭৬ লাখ ১৬ হাজার কোটির কিছু বেশি ডলার পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

সাধারণত দুই ঈদের আগে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স বাড়ে, ঈদের পর কমে যায়। তবে এবার কোরবানির ঈদের আগে যে গতিতে রেমিট্যান্স এসেছে, সেই ধারা ঈদের পরেও অব্যাহত আছে।

দেশে গত ১০ জুলাই কোরবানির ঈদ উদযাপিত হয়। ঈদের আগে রেমিট্যান্স প্রবাহে ঢল নামে। ঈদের ছুটির আগে সাত দিনেই ৯০ কোটি ৯৩ লাখ ডলার দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। ছুটির পর তিন দিনে (১২ থেকে ১৪ জুলাই) পাঠিয়েছেন ৩৩ কোটি ডলার। ১৫ ও ১৬ জুলাই ছিল সাপ্তাহিক ছুটি শুক্র ও শনিবার। এরপর ১৭ থেকে ২১ জুলাই পাঁচ দিনে এসেছে ৪০ কোটি ৩৫ লাখ ১০ হাজার ডলার।

সব মিলিয়ে জুলাইয়ের ২১ দিনে (১ থেকে ২১ জুলাই) ১৬৪ কোটি ২৭ লাখ ৫০ হাজার ডলার দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

মাসের বাকি ৭ দিনে এই গতিতে রেমিট্যান্স এলে জুলাই শেষে মোট রেমিট্যান্সের পরিমাণ ২৫০ কোটি (২.৫০ বিলিয়ন) ডলারের কাছাকাছি হতে পারে।

Back to top button