মেসি-নেইমারের গোলে পিএসজির দুর্দান্ত শুরু

টানা দ্বিতীয় সপ্তাহে একসঙ্গে জ্বলে উঠলেন নেইমার ও লিওনেল মেসি। গোল করে ও করিয়ে প্রথমার্ধেই দলকে চালকের আসনে বসালেন ব্রাজিলিয়ান তারকা।

আর শেষ দিকে জোড়া গোল করার পথে ওভারহেড কিকে মুগ্ধতা ছড়ালেন আর্জেন্টাইন তারকা। তারকায় ঠাসা দলটির আক্রমণাত্মক ফুটবলের সামনে কোনো প্রতিরোধই গড়তে পারল না ক্লেহমোঁ।

শনিবার রাতে লিগ ওয়ানের ম্যাচে ৫-০ গোলে জিতেছে ক্রিস্তফ গালতিয়ের দল। অন্য দুটি গোল করেছেন আশরাফ হাকিমি ও মার্কিনিয়োস।

গত সপ্তাহে নঁতকে ৪-০ ব্যবধানে গুঁড়িয়ে ফরাসি সুপার কাপ জয় দিয়ে নতুন মৌসুম শুরু করে পিএসজি। ওই ম্যাচে জোড়া গোল করেছিলেন নেইমার, জালের দেখা পেয়েছিলেন মেসিও।

লিগে গত মৌসুমে দুইবারের দেখায় ক্লেহমোঁর বিপক্ষে ৪-০ ও ৬-১ গোলে জিতেছিল পিএসজি। ফিরতি লেগে হ্যাটট্রিক করেছিলেন কিলিয়ান এমবাপে ও নেইমার।

চোটের কারণে এদিন ফরাসি তারকা না থাকলেও শুরু থেকে ছিলেন নেইমার। নবম মিনিটেই দলকে এগিয়ে নেন তিনি। বাঁ দিকের বাইলাইনের কাছ থেকে কাটব্যাক করেন পাবলো সারাবিয়া এবং ফ্লিকে বল বাড়ান নেইমারের পায়ে। ডি-বক্সের মুখ থেকে নিখুঁত শটে গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান তারকা।

২৬তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন হাকিমি। দলের তৃতীয় গোলেও বড় ভূমিকা নেইমারের। ৩৮তম মিনিটে বাঁ দিক থেকে তার দারুণ ফ্রি কিকে বিনা বাধায় জোরাল হেডে স্কোরলাইন ৩-০ করেন ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার মার্কিনিয়োস।

শেষ দিকে ছয় মিনিটের ব্যবধানে দুটি গোল করেন মেসি।৮০তম মিনিটে মাঝমাঠ থেকে বল পায়ে ছুটে ডি-বক্সে ঢোকার মুখে বাঁ দিকে নেইমারকে পাস দেন মেসি। নেইমার শট না নিয়ে দেন ফিরতি পাস আর প্রথম ছোঁয়ায় কোনাকুনি শটে স্কোরলাইন ৪-০ করেন সাবেক বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড।

এরপরই তার ওই ওভারহেড কিক গোল। জাতীয় দল সতীর্থ লেয়ান্দ্রো পারেদেসের উঁচু করে বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিতে চোখের পলকে অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন মেসি, বল বুক দিয়ে নামিয়ে অসাধারণ নৈপুণ্যে গোলরক্ষকের ওপর দিয়ে পাঠিয়ে দেন জালে।

Back to top button