নতুন দুই মহড়ায় চীন

তাইওয়ানকে ঘিরে চীনের সামরিক মহড়া গতকাল রোববার শেষ হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরকে কেন্দ্র করে বিতর্কিত এই মহড়া শেষ হওয়ার আগেই গতকাল থেকে চীন ও কোরীয় উপদ্বীপের মাঝামাঝি অবস্থিত পীত সাগরে নতুন মহড়া শুরু করেছে চীনের সেনাবাহিনী। এই মহড়া ১৫ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। চীনের মেরিটাইম সেফটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, বোহাই সাগরেও মাসব্যাপী ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ মহড়া পরিচালনা করা হবে। এটি আজ থেকে শুরু হয়ে আগামী ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে।

তাইওয়ানের পরিবহন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তাইওয়ান প্রণালিতে মহড়া শুরুর সময়ই উড়োজাহাজ সংস্থাগুলোকে সাতটি ‘সাময়িক ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল’ এড়িয়ে চলতে সতর্ক করা হয়েছিল। এসব অঞ্চলের মধ্যে ছয়টিতে গতকাল দুপুর থেকেই চলাচল শুরু হয়েছে। সপ্তম অঞ্চল তথা তাইওয়ানের পূর্বদিকের জলভাগে এই সতর্কতা আজ সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত কার্যকর থাকবে বলে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। এসব অঞ্চলে সংশ্নিষ্ট ফ্লাইটগুলো ও নৌ চলাচল ধীরে ধীরে শুরু হতে পারে বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়। তবে পূর্বদিকের জলভাগে এখনও কিছু রুট স্বাভাবিক হয়নি বলে দাবি করেছে তাইপে।
চীনের সামরিক মহড়ার কারণে বেইজিং ও তাইপের মধ্যে ‘ইঁদুর-বেড়াল’ খেলা শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সামরিক বিশ্নেষকরা। তাইপের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, তাইওয়ানের মূলদ্বীপে ও জলসীমায় হামলা চালানোর অনুকরণে তাইওয়ান প্রণালিতে মহড়া চালিয়েছে চীন। মূলদ্বীপ ছাড়াও তাইওয়ানের দূরের দ্বীপগুলোতেও ড্রোন পাঠিয়েছে বেইজিং। তাইপের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে, তাইওয়ানের মূল দ্বীপে ও জলসীমায় জাহাজে হামলা চালানোর অনুকরণ করে

তাইওয়ান প্রণালিতে যুদ্ধবিমান, যুদ্ধজাহাজ ও ড্রোন পাঠিয়েছে চীন। বেইজিং তাইওয়ানের দূরের দ্বীপগুলোতেও ড্রোন পাঠিয়েছে। জবাবে নিজেদের যুদ্ধবিমান ও যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন করে তাইপে। এ ছাড়া শত্রুর অবস্থা পর্যবেক্ষণে যৌথ গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ায় দ্বীপরাষ্ট্রটি। মহড়া শেষ করার বিষয়ে চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় কোনো বিবৃতি না দিলেও দেশটির সামরিক বাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ড জানিয়েছে, মহড়ায় স্থলভাগে সব ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করে যৌথ হামলা ও দূরপাল্লার বিমান হামলার সামর্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, তাইওয়ানকে ঘিরে এমন ছয়টি অঞ্চলে চীন মহড়া চালিয়েছে, এতে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে তাইওয়ান।

এদিকে তাইওয়ানকে ঘিরে চীনের সামরিক মহড়াকে উস্কানিমূলক ও কাণ্ডজ্ঞানহীন আখ্যা দিয়ে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র বলেছেন, ‘বেইজিং তাইওয়ানের স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে চায়। তবে চীনের হিসাব-নিকাশে ভুল রয়েছে। চীনের এই বিরোধপূর্ণ আচরণ তাইওয়ানে দীর্ঘমেয়াদি শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার যে প্রচেষ্টা তা বাধাগ্রস্ত করছে।’ চীনের এ মহড়াকে উস্কানিমূলক আখ্যা দেওয়া ওয়াশিংটনের বক্তব্যের জবাবে এখনও কোনো মন্তব্য করেনি বেইজিং।

Back to top button