‘নায়কের প্রেমিকা বা স্ত্রী হতে হতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম’

বিল্লু’, ‘ভাগম ভাগ’, ‘নো এন্ট্রি’, ‘হাউসফুল’র মতো জনপ্রিয় ছবি তার ঝুলিতে। ইদানীং চুটিয়ে অভিনয় করছেন ওটিটি সিরিজে। অথচ মাঝের বেশ কয়েকটা বছর বড় পর্দা থেকে প্রায় গায়েবই হয়ে গিয়েছিলেন তিনি।  তিনি সাবেক বিশ্ব সুন্দরী মিস ইউনিভার্স লারা দত্ত। বলিউডের উপর রাগ করেই ছবি করা ছেড়েছিলেন, এভাবেই বললেন একদা হিন্দি ছবির ব্যস্ত এই অভিনেত্রী।

২০০৩ সালে অক্ষয় কুমার ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে ‘আন্দাজ’এ তার বলিউডের সফর শুরু। তারপরে প্রায় এক দশক পরপর ছবি করে গিয়েছেন লারা। ‘আন্দাজ’ তো বটেই, লারা সাফল্যের মুখ দেখেন ‘খাকি’, ‘মস্তি’, ‘নো এন্ট্রি’, ‘পার্টনার’, ‘বিল্লু’, ‘হাউসফুল’সহ একগুচ্ছ ছবিতে।কমেডি ছবিতে ভাল অভিনয়ের হাত ধরে দিব্যি জায়গা করে নেন দর্শক মনেও। কিন্তু সেই লারা-ই ২০১৫ সাল থেকে ছবি কমাতে কমাতে বড় পর্দা থেকে প্রায় উধাও।

দুই বছরের বেশি সময় পর্দা থেকে পুরোপুরি দূরে থেকে আবার একটু একটু করে অভিনয়ে ফিরছেন টেনিস তারকা মহেশ ভূপতির ঘরনি। তবে এবারেও মূলত ওটিটি সিরিজেই।বহু দিন পরে ২০২১ সালে শুধুমাত্র একটি ছবিতেই দেখা গিয়েছে তাকে। ফের প্রথম নায়ক অক্ষয় কুমারের সঙ্গেই জুটি বেঁধে, ‘বেলবটম’ ছবিতে।

কিন্তু কী এমন ঘটল যে বলিউড থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেন ব্যস্ত অভিনেত্রী? লারা জানান, মেয়ে সায়রার জন্মের পরে তাকে বেশি সময় দিতেই এই সিদ্ধান্ত। তবে ততদিনে বলিউডের উপরেও বীতশ্রদ্ধ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। আর তারপরেই বিস্ফোরক ‘বিল্লু’ ছবিতে শাহরুখ খান, প্রয়াত ইরফান খানের সহঅভিনেত্রী।

বলেন, নায়কের প্রেমিকা বা স্ত্রীর চরিত্র করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম। আসলে তখনকার বলিউডে নায়িকার চরিত্র থাকত স্রেফ ছবির গ্ল্যামার বাড়ানোর উদ্দেশ্যে। তাদের ভূমিকা হতো নায়কের সুন্দরী প্রেমিকা বা স্ত্রী হওয়া। তা করতে করতে বিরক্ত হয়ে গিয়েছিলাম। তাই ছবি করাই কমিয়ে দিই। ভাগ্যিস এই সময়ে কয়েকটা কমেডি ছবিতে করেছিলাম। সাফল্যও এসেছিল। বলিউডে ওটুকুই আমার ভাল লাগার স্মৃতি।

এখন ওটিটিতে ফিরেছেন লারা। ‘হানড্রেডে’ পুলিশ অফিসার, ‘হিকাপস অ্যান্ড হুকআপস’-এ একাকী মা, ‘কউন বনেগি শিখরবতী’তে এক পাগলা রাজার কন্যা— এক একটি সিরিজে এক এক রকম স্বাদের চরিত্রে আশ মিটিয়ে অভিনয় করছেন।নিজেই বলছেন, গত দেড় বছরে যত কাজ করেছেন, আগের ছয় বছরে তার চেয়ে কমই করেছিলেন। ৪৩ বছরের অভিনেত্রীর এখন এটুকুই তো চাওয়া।

Back to top button