পাবনার পরিত্যক্ত বাড়িতে মিললো স্কুলছাত্রের মরদেহ

 সদর উপজেলার চরতারাপুর ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গি গ্রামে পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে তৃতীয় শ্রেণী পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৫ আগস্ট) মধ্যরাত ১২টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত স্কুলছাত্রের নাম রোমিও (৮)। সে বালিয়াডাঙ্গি গ্রামের মাসুদ হোসেনের ছেলে এবং বালিয়াডাঙ্গি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র ছিল। মাথায় আঘাতের চিহ্ন দেখে পুলিশ ও স্বজনদের প্রাথমিক ধারণা তাকে হত্যা করা হয়েছে। তবে, ঠিক কি কারণে রোমিওকে হত্যা করা হয়েছে তা জানা যায়নি।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জুয়েল বলেন, বাড়ি থেকে কিছুদুরে একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে স্কুলছাত্র রোমিও’র মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানায় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাড়ির টয়লেট থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে। রোমিওর মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

ওসি আমিনুল বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। রোমিও হত্যার কারণ ও জড়িতদের খুঁজে বের করতে কাজ করছে পুলিশ। মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

নিহতের বড় ভাই রকি হোসেন বলেন, সোমবার (১৫ আগস্ট) সকাল থেকে রোমিও নিখোঁজ ছিল। সারাদিন তার খোঁজ না পেয়ে এলাকায় মাইকিংও করা হয়। মধ্যরাতে খবর আসে পার্শ্ববর্তী জনৈক মির্জা মশিউর রহমানের পরিত্যক্ত বাড়িতে তার লাশ পাওয়া গেছে। কারা, কি কারণে তাকে হত্যা করেছে তা কিছুই বুঝতে পারছেন না তারা।

চরতারাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান খান বলেন, ঘটনাটি খুবই দু:খজনক। এত ছোট্ট শিশুকে কিভাবে হত্যা করলো দূর্বৃত্তরা।

তাদের পরিবারের সাথে কারো বিরোধও নেই। পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দেয়ার প্রস্তুতি চলছে। জড়িতদের দ্রুত খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

Back to top button