আমার আর ক‍্যাটরিনার উদারতার জন‍্যই জনের কেরিয়ার বেঁচে গিয়েছে: সালমান

হয় তাঁকে ভালবাসা যায়, নয়তো ঘৃণা। সালমান খানের অনুরাগী এবং নিন্দুকদের সংখ‍্যা প্রায় সমান। তবে ইন্ডাস্ট্রিতে বেশিরভাগ লোকজনদের সঙ্গেই শত্রুতা বানিয়ে রেখেছেন তিনি, যাদের মধ‍্যে একজন হলেন জন আব্রাহাম। দুই অভিনেতার মধ‍্যে বিবাদ দীর্ঘদিনের। আর এর সূত্রপাত অভিনেত্রী ক‍্যাটরিনা কাইফের দৌলতে।

সালমান ক‍্যাটরিনার প্রাক্তন সম্পর্কের কথা কারোরই অজানা নয়। শোনা যায়, অভিনেত্রীর জন‍্য একাধিক তারকার সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়েছিলেন সালমান। তাঁদের মধ‍্যেই একজন জন। বিবাদ শুরু হয় যখন ক‍্যাটরিনা অভিযোগ করেন, জন নাকি তাঁকে একটি ছবি থেকে বেরিয়ে যেতে জোর করেছিলেন। অদ্ভূত ভাবে সালমানের জন‍্যই নাকি সেই ছবিতে অভিনয় করতে রাজি হয়েছিলেন অভিনেত্রী।

স্বাভাবিক ভাবেই জনের বিরুদ্ধে নিজের প্রেমিকের কাছে এসে নালিশ করেছিলেন ক‍্যাটরিনা। আর তাতেই ক্ষেপে যান ভাইজান। জনকে সর্বসমক্ষে অপমান করতেও ছাড়েননি তিনি। তাঁর এবং ক‍্যাটরিনার জন‍্যই নাকি জন একটা ভাল ছবি পেয়েছিলেন, এমন কথাও তিনি বলেছিলেন টেলিভিশনের পর্দায়।‘আপ কি আদালত’ নামে একটি টিভি শোতে অতিথি হয়ে এসেছিলেন সালমান।

সেখানেই তিনি জানান, বেশ কয়েক বছর আগে ক‍্যাটরিনা যখন নতুন নতুন ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছিলেন, তখন প্রথমে একটি ছবিতে সুযোগ পেলেও পরে সেটা তাঁর হাত থেকে বেরিয়ে যায়। তিন দিন ধরে সালমানের কাছে কান্নাকাটি করেছিলেন অভিনেত্রী, এই বলে যে তাঁর কেরিয়ার নাকি শেষ হয়ে যাবে।

কিন্তু সালমান তখনি বুঝেছিলেন, ক‍্যাটরিনা একদিন ইন্ডাস্ট্রির সবথেকে বড় তারকাদের মধ‍্যে একজন হবেন। এর কয়েক বছর পর ফের একটি ছবিতে সুযোগ পান ক‍্যাট। সেই ছবিতে নেওয়া হয়েছিল জনকেও। সালমানই নাকি তখন ক‍্যাটরিনাকে উপদেশ দিয়েছিলেন, উদার হতে। জন ক‍্যাটের জুটি বক্স অফিসে সাফল‍্য এনেছিল।সালমান বলেছিলেন, ক‍্যাটরিনা এবং তাঁর উদারতার জন‍্য জন আব্রাহাম একটা বড় হিট পেয়েছেন।

পরবর্তীকালে জনও এসেছিলেন ওই শোতে এবং তিনি জানিয়েছিলেন, সালমানের সঙ্গে তাঁর মনোমালিন‍্য চলছিল ঠিকই। কিন্তু কারণটা তাঁর অজানা ছিল। সেই সঙ্গে তিনি কটাক্ষ করেছিলেন, একজন নবাগত হয়ে সে সময়ে তাঁর অত ক্ষমতা ছিল না যে একজন অভিনেত্রীকে সিনেমা থেকে বের করে দেবেন।

Back to top button