২৪ ঘণ্টায় করোনা কেড়ে নিলো যত জনের প্রাণ

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ২৮৮ জনে। একই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৮০৭ জনের। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ লাখ ৪৭ হাজার ৩৩১ জনে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০ হাজার ২২১ জন। এ সময় রোগী শনাক্ত হয়েছে ৩৪ লাখ ৯৯ হাজার ৭৮ জন।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। ওয়ার্ল্ডোমিটারসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৬ কোটি ৩০ লাখ ২ হাজার ২৯৩ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫৬ লাখ ৪৫ হাজার ৮৮৪ জনের।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ২৬ হাজার ৬১ জন এবং মারা গেছেন ২ হাজার ৭৬২ জন। রাশিয়ায় মারা গেছেন ৬৫৭ জন এবং সংক্রমিত হয়েছেন ৭৪ হাজার ৬৯২ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ২৮ হাজার ৮ জন এবং মারা গেছেন ২৫৮ জন। স্পেনে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৩ হাজার ৫৫৩ জন এবং মারা গেছেন ২১৫ জন। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬৭ হাজার ২০৬ জন এবং মারা গেছেন ৩৬২ জন।

যুক্তরাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ২ হাজার ২৯২ জন এবং মারা গেছেন ৩৪৬ জন। কলম্বিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ হাজার ৮৮৯ জন এবং মারা গেছেন ২৮২ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৮৮ হাজার ৭৫৯ জন এবং মারা গেছেন ১৮৪ জন। ইউক্রেনে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৩২১ জন এবং মারা গেছেন ১৪১ জন। ব্রাজিলে মারা গেছেন ৬০৬ জন এবং সংক্রমিত হয়েছেন ২ লাখ ১৯ হাজার ৮৭৮ জন।

এছাড়া তুরস্কে ১৮৮ জন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ৯৪ জন, পোল্যান্ডে ২৭৬ জন, কানাডায় ২২৬ জন, আর্জেন্টিনায় ৩১৬ জন, গ্রিসে ১১৮ জন, হাঙ্গেরিতে ৬৯ জন, কাজাখস্তানে ৩১১ জন, মেক্সিকোতে ৪৭৫ জন এবং ভিয়েতনামে ১৫৫ জন মারা গেছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।

Back to top button