দেবরকে বিয়ের দাবিতে ভাবির অনশন

দেবরের অন্যত্র বিয়ে ঠিক হয়ায় বিয়ের দাবিতে দুই সন্তানের জননী (৩৫) অনশন করেছেন। বুধবার (২৬ জানুয়ারি) রাত থেকে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার করমজা ইউনিয়নের আফড়া হিন্দুপাড়ার দেবর ইব্রাহিম শেখের (২৭) ঘরে অবস্থান নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুরেও তাকে সেখানেই দেখা গেছে। ইব্রাহিম শেখ আফড়া গ্রামের মৃত মোকারম শেখের ছোট ছেলে। ভাবির অনশনের খবরে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন ইব্রাহিম।

ওই নারীর দাবি, বিয়ের পর থেকেই দেবর ইব্রাহিম শেখের সঙ্গে প্রায় ১৫ বছর ধরে তার পরকীয়ার সম্পর্ক। গত মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) গোপনে অন্যত্র ইব্রাহিমের বিয়ে ঠিক করে পরিবার। আগামী শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) ইব্রাহিমের বিয়ের দিন ধার্য করা হয়। এ খবর পেয়ে বিয়ের দাবিতে তিনি দেবরের ঘরে অনশনে বসেছেন।

তিনি বলেন, ‘বিয়ের পর থেকেই ছোট দেবর ইব্রাহিমের সঙ্গে আমার প্রেমের সম্পর্ক করে ওঠে। আমি বিয়ের কথা বললে নানা বাহানা দেখিয়ে অনেক বছর পাশ কাটিয়ে যায় ইব্রাহিম। দুই বছর আগে স্বামীর সঙ্গে ঝামেলা করে বাবার বাড়ি চলে গেলে ইব্রাহিম বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমাকে ফিরে আসতে বলে।

গত সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সে শাহজাদপুর মসজিদে গিয়ে শপথ করেছে দু-চারদিনের মধ্যে পালিয়ে আমাকে বিয়ে করবে। এখন আমাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে রেখে গোপনে অন্যত্র জায়গায় বিয়ে ঠিক করেছে। আমি বিষয়টি জানার পর দেবর ইব্রাহিমের ঘরে বিয়ের দাবিতে বসে আছি। বিয়ে না করলে দেবরের ঘরেই গলায় দঁড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করব। এ ব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ইব্রাহিম শেখ বলেন, ‘ভাবির সঙ্গে আমার কোনো প্রেমের সম্পর্ক নেই।

সে আমার বিয়ের কথা শুনে ষড়যন্ত্র করে আমার বিয়ে ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করছে। সে এর আগেও আমার দুই-তিনটা বিয়ে ভেঙে দিয়েছে। এ বিষয়ে করমজা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আবু দায়েন কালু জানান, বিষয়টি আমি লোকমুখে শুনেছি। তবে মীমাংসার জন্য আমার কাছে বা ইউনিয়ন পরিষদে কেউ আসেনি।

সাঁথিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Back to top button