স্বামীর বিশেষ অঙ্গ কেটে নিয়ে চিঠি লিখে উধাও স্ত্রী

মানবসমাজে কত ধরণের প্রেমই তো আছে! তবে যত ধরণের প্রেমই থাকুক না কেন ‘পরকীয়া’ প্রেমকে সবাই একটু ভিন্ন চোখে দেখে। এর ঝাঁঝ অতি মারাত্মক। রংপুরের মিঠাপুকুরে পরকীয়ার জেরে স্বামী সোলাইমান মিয়ার (২৪) গো প না ঙ্গ কেটে নিয়ে পালিয়ে গেছে স্ত্রী। পরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) মধ্য রাতে উপজেলার দমদমা বাজারের শিমুল পাড়া গ্রামে এঘটনা ঘটে।সোলাইমান মিয়া ওই গ্রামের ফুলবাবু ওরফে ফুলু মিয়ার ছেলে। তিনি ট্রাক ড্রাইভারের সহকারী হিসেবে দেশের বিভিন্ন এলাকায় হেলপারের কাজ করতেন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মাগুরা জেলার রাহেনা বেগম নামে এক নারীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে সম্পর্ক গড়ে উঠে সোলাইমানের। দুই বছর আগে মাগুরা জেলার ওই নারীর সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি। বিয়ের এক বছর পর সোলাইমান তার স্ত্রীকে গ্রামের বাড়ি মিঠাপুকুরে নিয়ে এসে সংসার শুরু করেন। সম্প্রতি সোলাইমানের স্ত্রী রাহেনা বেগম অভিযোগ তুলেন তার স্বামী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো।

সোমবার রাতে খাওয়া শেষে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে স্ত্রী রাহেনা বেগম তার স্বামী সোলাইমান মিয়ার বিশেষ অঙ্গ কেটে নিয়ে পালিয়ে যান। পরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউপি সদস্য রাজু আহম্মেদ জানান, ওই নারী একটি চিঠি লিখে গিয়েছেন। সেখানে তার পূর্বের সংসার নষ্টের জন্য বর্তমান স্বামী সোলাইমানকে দায়ী করেছেন। সোলাইমানের মোবাইলে একাধিক মেয়ের সঙ্গে কথা বলার বিষয়টি তিনি নিশ্চিত করেন।

Back to top button