ফরিদপুরে প্রেম ঘটিত কারণে যুবকর হত্যা, আটক ২

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় প্রেমঘটিত কারণে সন্ত্রাসী হামলায় মারাত্মক ভাবে আহত হওয়া যুবক শাহেদ শেখ (১৯) মারা গেছেন। রবিবার রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য শাহেদকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেবার পথে সে মারা যায়। নিহত শাহেদ শেখ আলফাডাঙ্গা উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের চরডাঙ্গা গ্রামের শেখ সাদির ছেলে।

কুপিয়ে শাহেদকে হত্যার ঘটনায় পুলিশ লাদেন (১৮) ও ইব্রাহিম (২০) নামের দুই যুবককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় আলফাডাঙ্গা থানায় মামলা হয়েছে। থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রবিবার দুপুরে শাহেদ আলফাডাঙ্গা সদর থেকে গোপালপুরের বাড়িতে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে রায়ের পানাইল এলাকায় কয়েকজন সন্ত্রাসী তার পথরোথ করে।

একপর্যায়ে তারা শাহেদকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করে। এসময় শাহেদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে মারাত্মক আহত অবস্থায় শাহেদকে প্রথমে আলফাডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেবার পথে সে মারা যায়। এ ঘটনায় নিহতের স্বজন মোঃ লিটু খান জানান, শাহেদের সাথে কয়েক যুবকের দ্বন্দ্ব চলছিল। প্রেমঘটিত কারণে তাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

গোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইনামুল হাসান বলেন, আফজালের ছেলে লাদেন ও আলম মিয়ার ছেলে ইব্রাহিমের সাথে প্রেম সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে শাহেদের ঝামেলা ছিল। এ নিয়ে উপর অতর্কিত হামলা চালানো হয়। আলফাডাঙ্গা থানার ওসি ওয়াহিদুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে।

Back to top button