যে কারণে আইপিএলে দল পাননি সাকিব

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) মেগা নিলামে এবার কোনো দলই পাননি বাংলাদেশের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। প্রথম দিন দল না পাওয়ায় দ্বিতীয় দিনের আশাই করে ছিল সকলে।

কিন্তু দ্বিতীয় দিনও অবিক্রিত থেকে যেতে হয়েছে সাকিবকে। এর ফলে আইপিএলের পঞ্চদশ আসরে খেলা হচ্ছে না দেশসেরা এ ক্রিকেটারের। আইপিএল ২০২২ এ সাকিবের দল না পাওয়ার পেছনে বিভিন্ন কারণ থাকতে পারে। তেমনই সম্ভাব্য ছয়টি কারণ তুলে ধরা হলো এখানে।

 ১. সাম্প্রতিক সময়ে আইপিএলে সাকিবের পারফরম্যান্স সন্তোষজনক নয়। গত বছর কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে ৮ ম্যাচে করেন মাত্র ৪৭ রান, উইকেট পান ৪টি। ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব গোপন করায় নিষেধাজ্ঞার কারণে ২০২০ মৌসুমে খেলতে পারেননি তিনি। ২০১৯ আসরে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে ৩ ম্যাচে করেন ৯ রান, শিকার করেন মাত্র ২ উইকেট। এই পারফরম্যান্স আইপিএল দলগুলোকে প্রভাবিত করতে পারে।

২. এবারের আইপিএলের শেষভাগে সাকিবকে পেতো না আইপিএলের দলগুলো। ওই সময় শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। তাদের জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবেন তিনি। প্রথম অংশেও সাকিবকে পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। সেসময় দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ খেলবে টাইগাররা। যদিও ওই সিরিজের ওয়ানডে খেলার কথা জানিয়েছেন সাকিব। তবে টেস্ট খেলবেন না বলে শোনা যাচ্ছে। কিন্তু সেটাও নিশ্চিত নয়। ফলে খুব কম ম্যাচে পাওয়া যেতো বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারকে। তাই তার প্রতি আগ্রহ দেখায়নি দলগুলো।

৩. বিপিএলে টানা ৫ ম্যাচে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন। ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফরম করেছেন। তবু তাকে নেয়নি আইপিএলের কোনও দল। এতে বোঝা যায় বিপিএলের মান নিয়ে সন্তুষ্ট নয় তারা।

৪. এই বছরের আইপিএলের নিলামে অলরাউন্ডার ক্যাটাগরিতে ছিলেন সাকিব। কিন্তু আইপিএল ইতিহাসে এর প্রমাণ দিতে পারেননি তিনি। মূলত বোলার হিসেবে অতীতে এই টুর্নামেন্টে পারফর্ম করে গেছেন তিনি। ব্যাটার হিসেবে তার অবদান খুবই কম। ফলে শুধু স্পিনার হিসেবে তাকে নেয়নি আইপিএলের দল। কারণ ভারতেই অনেক বিকল্প আছে।

৫. এবার আইপিএল নিলামে সাকিবের ভিত্তিমূল্য ছিল ২ কোটি রুপি। এটা বেশ বেশি ছিল। এর কম থাকলে হয়তো বেশি দামেই তাকে নিতে পারতো কোনো দল।

৬. আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে অস্ট্রেলিয়ায়। সেখানকার পিচ পেসবান্ধব। তাই পেসারের ওপর গুরুত্ব দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। পেসার খেলিয়ে ক্রিকেটের দ্বিতীয় মর্যাদাকর টুর্নামেন্টের জন্য নিজেদের খেলোয়াড়দের প্রস্তুত করতে চায় তারা।

সাকিবকে দলে না নেওয়ার এটিও অন্যতম কারণ হতে পারে। কেনান, তিনি মূলত স্পিনার হিসেবে আইপিএলে ভূমিকা পালন করে থাকেন সাকিব।

Back to top button