নতুন পে স্কেলের দাবিতে সরকারি কর্মচারীদের কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা

অবিলম্বে নবম পে স্কেল প্রদান,৫০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা প্রদান, এক ও অভিন্ন নিয়োগ বিধি প্রণয়ন সহ ৫ দফা দাবিতে কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করেছে ১১-২০ গ্রেড সরকারি চাকরিজীবী জাতীয় ফোরাম। শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ এর আয়োজনে দাবি আদায়ে করণীয় শীর্ষক এক জরুরী আলোচনা সভায় এই কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়।

 ঢাকার হাউজিং বিল্ডিং রিসোর্স ইনস্টিটিউট (এইচ বি আর আই) হলরুমে দিনব্যাপী এ জরুরী সভায় সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ এর সভাপতি মোঃ মিরাজুল ইসলাম। এর পর বিকাল ৪ টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ এর সকল নেত্রীবৃন্দ।

 সভায় সংগঠনটির সভাপতি মোঃ মিরাজুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী,সরকারের প্রত্যেকটি উন্নয়ন কাজে আমরা ১১-২০ গ্রেডের কর্মচারীরা কাধে কাধ মিলিয়ে কাজ করি কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হয় আমরা ১৪ লক্ষ কর্মচারী চরম বৈষম্যের স্বীকার।

বর্তমান দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি চরম পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে এ অবস্থায় আমরা খুব কষ্ট জীবন যাপন করছি। দীর্ঘ দিন ধরে আমরা সরকারের কাছে আমাদের দাবী বাস্তবায়নের জন্য অনুরোধ করে আসছি কিন্তু সরকার আজ অবধি কোন কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেন নি।

এমতবস্থায় আমরা নিরুপায় হয়ে নিম্ন লিখিত কর্মসূচি ঘোষণা করছি:-

১. আগামী ৬ মার্চ সকল বিভাগীয় কমিশনার এর মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর দাবী সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান।

২. আগামী ৭ই মার্চ থেকে ২০ সে মার্চ এর মধ্যে ৩০০ আসনের সংসদ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য গণ কে স্মারকলিপি প্রদান ও দাবীর স্বপক্ষে মতবিনিময়।
৩. আগামী ২১ মার্চ থেকে সকল দপ্তরে দাবী সম্বলিত লিফলেট বিতরণ ও গণসংযোগ।

আগামী ৩০ মার্চ ২০২২ ইং তারিখের মধ্যে যদি দাবী বাস্তবায়নে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হয় তাহলে এপ্রিল ২০২২ ইং থেকে অর্ধ দিবস কলম বিরতি সহ ঢাকায় মহা সমাবেশের মত কঠোর কর্মসূচি পালন করতে বাধ্য হবো।

আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবারও আকুল আবেদন জানিয়ে বলতে চাই ,আপনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা,১৪ লক্ষ কর্মচারীর আস্থার ঠিকানা,আপনার দিকে অধীর আগ্রহে চেয়ে আছে ১৪ লক্ষ কর্মচারীর ভাগ্য।তাই ১৪ লক্ষ কর্মচারীর প্রাণের দাবী সমূহ বাস্তবায়নে আপনার আসু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন,সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ আহমেদ, কার্যকরী সভাপতি,মো জিয়াউর রহমান, সিনিয়র সহ সভাপতি মো জহিরুল ইসলাম জাফর,সহ সভাপতি সুরত নুর ডেইজি,দেলোয়ার হোসেন উম্মে জহুরা,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ,মেরাজুল হক রানা,সাজেদা বেগম,সহ সাধারণ সম্পাদক মো সালাউদ্দিন বুক্সান,সাংগঠনিক সম্পাদক মো তৌহিদুল ইসলাম,ইমাম হোসেন,আলী আকরাম সপন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিব আবদুল্লাহ সহ মহিলা বিষয়ক সম্পাদক শারমিন বিনতে রহমান, ফারজানা আক্তার,খাদিজা আক্তার, ঢাকা মহানগর এর সদস্য সচিব এবনে ফারুক সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

Back to top button