শৈলকুপার এসিল্যান্ডের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা ও অনিয়মের অভিযোগ

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) পার্থ প্রতিম শীল’র বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, সেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষের সাথে খারাপ ব্যবহারসহ অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সুবিধা গ্রহণ করে একটি পক্ষকে নাজেহাল করতে উঠে পড়ে লেগেছেন তিনি। সেই সাথে তার বিরুদ্ধে রয়েছে ভূমি সেবা নিতে আসা সেবাগ্রহীতাদের সাথে অসদাচারণের।

এতে চাঁপা ক্ষোভ বিরাজ করছে উপজেলার মানুষের মাঝে। একজন সরকারি কর্মকর্তার এমন আচরণে সরকারের মান ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে মনে করেন উপজেলার সচেতন মহল।জানা যায়, শৈলকুপা পৌরসভার নতুন বাজার এলাকার বাসিন্দা মতিয়ার রহমান। নতুন বাজারে গত ৪০ বছর যাবত বসবাস ও ব্যবসায় করে আসছেন তিনি ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। বসবাসের সুবাদে তার বাড়ির সাথে লাগানো হাটের জমি ডিসি আর’র মাধ্যমে আঁধা-পাকা ঘর করে ব্যবসায় করে আসছেন।

ডিসিআর নবায়ন করতে গেলে এসিল্যান্ড পার্থ প্রতিম শীল নবায়ন না করে তাদের মৌখিক ভাবে স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেয়। পরবর্তীতে নানা কারণ দেখিয়ে সেই জমির ইজারা বাতিলের জন্য সুপারিশ করে। বর্তমানে সেই জমিটি বরাদ্ধ বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসনের এক উর্দ্ধতন কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারে মতিয়ার রহমানের ভাই আতিয়ার রহমান অভিযোগ করে বলেন, আমাদের পাশের জমিতে অনিয়ম করে দুই তলা ভবন করা হচ্ছে। অন্যপাশের জমিতে একজন ১৬ টি দোকান গড়ে তুলেছে। এমন নানা অনিয়ম থাকলেও এসিল্যান্ড তাদের কাছ থেকে সুবিধা নিয়ে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। আমাদের বরাদ্ধকৃত জমি তার পছন্দের ব্যক্তিদের দেওয়ার জন্য পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আমাদের কোন নোটিশ দেয়নি, পাশের দোকানদাদের সাথে কোন গণশুনাণী হয়নি। কিভাবে সে আমাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা
নিলো।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, ভূমি অফিসে গেলে এসিল্যান্ডের সাথে কথাই বলা যায় না। তার ব্যবহার খুবই খারাপ। মানুষকে মানুষ মনে করেন না তিনি। এ বিষয়ে এসিল্যান্ড পার্থ প্রতিম শীল বলেন, আমার কাছে অভিযোগ এসেছিল তাই আমি ওটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি। অন্যগুলোর বিরুদ্ধে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিব।

Back to top button