মেয়েদের শরীরের বিশেষ কিছু অঙ্গ স্পর্শ না করাই ভালো!

প্রতিটা মানুষের বিশেষ কিছু অঙ্গ আছে যেগুলোতে স্পর্শ করলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে, বিশেষ করে মেয়েদের ক্ষেত্রে বিষয়টা বেশি লক্ষ্য করা যায়, মেয়েদের শরীরের ত্বক অনেক পাতলা হয়ে থাকে।

তাদের ত্বক অনেক নরম এবং মসৃণ হয়ে থাকে, এজন্য তাদের শরীরের জোরে আঘাত করলে ক্ষতি সাধন হয়।
আবার এমনও কিছু জায়গা আছে যেগুলোতে স্পর্শ বা আঘাত করলে মা’রাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

যেমন নাকের মধ্যে যে নরম জায়গা টা আছে ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের এইটা আরো অনেক হালকা, এবং তাদের ঠোঁটগুলো ছেলেদের থেকে অনেক হালকা, তাই এসব অঙ্গ স্পর্শ না করাই ভালো।

সা’রাদিনের মধ্যে আ’মরা অসংখ্য বার নি’জেদের শরীর স্পর্শ করি। সা’বধান হোন, এমন বি’শেষ কিছু অঙ্গ আছে যা স্পর্শ করলে মহাবিপদ!

কেননা চি’কিৎসকরা বলছেন, সুস্থ স্বা’ভাবিক থাকতে চাইলে শ’রীরের বিশেষ কিছু অংশ স্পর্শ না করাই সর্বোত্তম কাজ।

চলুন জেনে নিই শ’রীরের কোন অংশগুলো স্পর্শ না করাই বুদ্ধিমানের কাজ সে সম্পর্কে-

কানের ছিদ্র: কানের ছিদ্রের ভিতরে কোনও কিছুই প্রবিষ্ট করানো কখনওই উচিত্‍ নয়।ডা’ক্তাররা বলছেন, কানের ছিদ্রের ভি’তরে যে চামড়া থাকে তা অত্যন্ত পাতলা হয়। কাজেই, আঙুল বা পেন বা পেনসিল জাতীয় কোনও কিছুই কা’নে প্রবেশ করালে বিপদ ঘটতে পারে।

তাহলে কান চুলকোলে কী করবেন? ডা’ক্তাররা বলছেন, মুখ বুজে ওই অস্বস্তিটুকু সহ্য করাই সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর। এম’নকী কান প’রিষ্কার করতে হলেও ডাক্তারের দ্বারস্থ হওয়াই স’বচেয়ে বু’দ্ধিমানের কাজ।

মুখ: মুখ ধো’ওয়া বা ত্বক চর্চার সময় মুখে হাত ছোঁওয়াতেই হবে। কিন্তু বাদবাকি অন্য সময়ে নিজের হাত দু’টিকে নিজের মুখ থেকে দূরেই রাখুন। কারণ সারাদিনের কাজের প্রয়োজনে বিভিন্ন জায়গায় আমাদের হাত ছোঁওয়াতেই হয়।

সেই সু’বাদে হাতে লেগে যায় বিভিন্ন রকমের জীবাণু। মুখে হাত দিলে সেগুলো সঞ্চারিত হয় মুখেও। তাছাড়া আ’মাদের আ’ঙুলের ডগাটি হয় তৈ’লাক্ত।মুখে হাত ছোঁওয়ালে সেই তেল মুখের ত্বকে লেগে যায়। এই জীবাণু এবং তৈলাক্ত উ’পাদান- দু’টিই মুখে ব্রণ, ফুসকুড়ি ই’ত্যাদির কারণ হয়।

Back to top button