‘গীতিকবি ও সুরকার হিসেবে বুলবুল ভাইয়ের নাম সংযুক্ত করার দাবি জানাচ্ছি’

‘বীর’ সিনেমায় আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল ভাই এর “তুমি আমার জীবন” বিখ্যাত গানটির প্রধান দুই লাইনের কথা ও সুর ব্যবহার করা হয়েছে। সহজ কথায় বর্তমানে ঐ গানটির একটি অংশের মালিক বুলবুল ভাই। উচিত ছিলো গানটি ব্যবহারের আগে তার পরিবারের কাছ থেকে অনুমতি নেয়া। সেটা নেয়া হয়েছে কিনা জানি না; তবে গানের কোথাও তাকে ধন্যবাদটুকুও দেয়া হয়নি।

এবার সমস্যা হচ্ছে একটা সন্তানের যেমন দুই পিতার নামে জন্মনিবন্ধন হয় না; ঠিক তেমনি একটি গানের জন্য দুই নামে দুটো কপিরাইট নিবন্ধনও সম্ভব নয়। যেহেতু এই গান নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে তাই সবচেয়ে সুন্দর সমাধান হবে গানটি যে সিনেমা বা বাণিজ্যিক মাধ্যমে ব্যবহার করা হয়েছে সেখানে গীতিকবি হিসেবে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল ভাই এর নাম সংযুক্ত করা।

বুলবুল ভাই এই দেশের জন্য যুদ্ধ করেছেন, তিনি কিংবদন্তী গীতিকবি, সুরকার ও সংগীত পরিচালক ছিলেন। এই সম্মানটুকু তার পাওয়া উচিত। তিনি মারা গেছেন মাত্র কিছুদিন হলো। আন্তর্জাতিক কপিরাইট আইন অনুসারে উনার মৃত্যুর দিন থেকে ৭০ বছর পর্যন্ত তার পরিবার বা সন্তান ঐ দুই লাইনের কপিরাইট এর মালিক। ঐ এতিম সন্তানদের হক তাদের ফিরিয়ে দেয়া উচিত।
একদিকে ঐ গানের জন্য জাতীয় পুরস্কার পেয়ে উল্লাস অভিনন্দনে সিক্ত হচ্ছে শিল্পীরা; আর যারা গানের মালিক তাদের স্বীকৃতিই নেই। এটা হতে পারে না। তাই ঐ সিনেমায় গানের ডিসক্রিপশনে অনতিবিলম্বে বুলবুল ভাই এর নাম গীতিকবি ও সুরকার হিসেবে সংযুক্ত করা ও বিগত দিনের রয়্যালটি তাদের হাতে পৌঁছে দিয়ে ভবিষ্যতে ঐ অংশটুকু ব্যবহারের অনুমতি নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

Back to top button