ভিড়ের মধ্যে জুতা খুলে দৌড় দিলেন পরীমণি

আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমণি অন্তঃসত্ত্বা। গত ১০ জানুয়ারি সুখবরটি প্রকাশ্যে এনেছেন তিনি। এই অবস্থার মধ্যেও তিনি ঘরে বসে নেই। দায়িত্ববোধ থেকে নিজের নতুন সিনেমা ‘মুখোশ’-এর মুক্তি উপলক্ষ্যে ছুটে গেছেন প্রেক্ষাগৃহে। কিন্তু সেখানে গিয়েই ভয়ংকর অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয়েছে নায়িকাকে!

 শুক্রবার (৪ মার্চ) দেশব্যাপী ৩৮টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে ইফতেখার শুভ পরিচালিত ‘মুখোশ’। এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, পরীমণি ও রোশান। মুক্তি উপলক্ষ্যে বিভিন্ন সিনেমা হলে ঘুরে ঘুরে দর্শকদের উৎসাহ দিচ্ছেন পরী, রোশান, নির্মাতা শুভসহ অন্যান্যরা।

শুক্রবার বিকাল ৩টার শো’তে রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী মধুমিতা হলে যান পরী-রোশানরা। সঙ্গে ছিলেন পরীর স্বামী-অভিনেতা শরিফুল রাজও। সেখানে তারা দর্শকের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। পরীকে সামনাসামনি দেখতে পেয়ে দর্শকের মাঝেও ছড়িয়ে পড়ে উচ্ছ্বাস, আনন্দ।

এরপর তারা যান চিত্রামহল সিনেমা হলে। পুরান ঢাকার এই প্রেক্ষাগৃহে সন্ধ্যা ছ’টা নাগাদ পৌঁছান পরী-রোশান-শুভ। একটি শো শেষ, অন্য শো শুরুর মুহূর্ত। দুটি শোয়ের দর্শকের সঙ্গে কথা বলে আর বের হতে পারছিলেন না তারা। কারণ পরীকে ঘিরে শত শত দর্শকের ভিড়।

এক পর্যায়ে সিনেমার টিম মানবপ্রাচীর তৈরি করেন। এরপর পায়ের জুতা খুলে দৌড়ে নিজের গাড়িতে ওঠেন পরীমণি। তবুও দর্শকরা নাছোড়বান্দা। গাড়িকেও অনেকক্ষণ ঘিরে রেখেছিল।এমন ঘটনায় ভয় পেয়ছেন নির্মাতা ইফতেখার শুভ। কেননা পরী অন্তঃসত্ত্বা নারী। বিষয়টি নিয়ে তিনি বলেন, ‘চিত্রমহলে গিয়ে ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম।

পরী-রোশানকে তো বেরই করতে পারছিলাম না। এমন ভয়াবহ সমস্যার সম্মুখীন হব, আগে বুঝিনি। বেশি ভয় পেয়েছিলাম পরীমনিকে নিয়ে। যাক, শেষ পর্যন্ত হল কর্তৃপক্ষ ও আমাদের স্বেচ্ছাসেবী টিমের সদস্যরা মানবপ্রাচীর তৈরি করে বের হতে পেরেছি আমরা।’

তবে ভয় নয়, আনন্দ পেয়েছেন পরীমণি। উচ্ছ্বসিত কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘আরে নায়ক-নায়িকা হলে যাবেন, দর্শক আটকে রাখবেন না, এটা কী হয়! এটাই তো মজা। এটাই তো বাংলা সিনেমার দর্শক। আমি বিষয়টি খুব উপভোগ করেছি। সিনেমায় এমনটিই তো হওয়া উচিত।’

Back to top button