যুদ্ধ বন্ধে পুতিনের ৪ শর্ত

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সামরিক অভিযান ঘোষণার কয়েক মিনিট পরেই গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে রুশ সেনারা। চলমান এই যুদ্ধের পঞ্চম দিন গত ২৮ ফেব্রুয়ারি পুরো ইউক্রেনের আকাশসীমা নিজের নিয়ন্ত্রণে নেয় রাশিয়া।

 প্রেসিডেন্ট পুতিনের ঘোষণার পর থেকে টানা ১০ দিন ধরে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি রাশিয়া। রুশ সেনাদের আগ্রাসন ঠেকাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ইউক্রেনীয় বাহিনী ও সেখানকার বেসামরিক নাগরিকরা। তারপরেও রাশিয়ার আগ্রাসন কোনোভাবেই ঠেকানো যাচ্ছে না।

ইতোমধ্যে দেশটির বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ শহর দখলে নিয়েছে রুশ বাহিনী। চলমান এই সংকট সমাধানের চেষ্টা করছেন বিশ্বনেতারাও। তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বলছেন, ইউক্রেনে চলমান সামরিক অভিযান বন্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে মস্কোর দেওয়া শর্তসমূহ।শুক্রবার (৪ মার্চ) জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎসের সঙ্গে ফোনালাপে পুতিন এ কথা বলেন।

রুশ প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে ক্রেমলিনের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা এএফপি জানিয়েছে, বেলারুশে রাশিয়া ও ইউক্রেনের প্রতিনিধিদের মধ্যে যে বৈঠক শুরু হয়েছে, সেটি ইউক্রেনে চলমান সামরিক অভিযান বন্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে বলে জার্মান চ্যান্সেলরকে জানিয়েছেন পুতিন। তবে এক্ষেত্রে কিয়েভকে অবশ্যই মস্কোর শর্তসমূহ পূরণের প্রতিশ্রুতি দিতে হবে।

টেলিফোনে শলৎসকে পুতিন বলেন, কিয়েভ বরাবর মস্কোর শর্ত মূলত ৪টি। সেগুলো হলো- একটি নিরপেক্ষ ও পরমাণু অস্ত্রমুক্ত দেশ হিসেবে ইউক্রেনের অবস্থান স্পষ্ট করা, দেশটি থেকে নাৎসীবাদ নির্মূল, ক্রিমিয়াকে রাশিয়ার অংশ হিসেবে স্বীকার করে নেওয়া এবং দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় দুই ভূখণ্ড দনেতস্ক ও লুহানস্ককে স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সামরিক অভিযান ঘোষণার কয়েক মিনিট পরেই ইউক্রেনে বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে রুশ সেনারা। এরপর থেকে ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে যুদ্ধ চলছে। ইউক্রেন দাবি করেছে, যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ইউক্রেনের দুই হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। যদিও নিহতের নির্দিষ্ট সংখ্যা জানায়নি তারা। এ ছাড়া রাশিয়ার ৯ হাজার ১৬৬ সৈন্য নিহত হয়েছেন বলে দাবি ইউক্রেনের।

অন্যদিকে রাশিয়া দাবি করেছে, যুদ্ধে তাদের ৪৯৮ সৈন্য নিহত এবং ইউক্রেনের ২ হাজার ৮৭০ জনের বেশি ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হয়েছেন।এছাড়া জাতিসংঘ জানিয়েছে, রুশ হামলায় এখন পর্যন্ত ১৯ শিশুসহ ইউক্রেনের ৩৩১ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। যদিও সংস্থাটি বলেছে, এটি নিশ্চিত যে প্রকৃত হতাহতের সংখ্যা হয়তো অনেক বেশি।

সূত্র : এএফপি

Back to top button